সেই অলৌকিক রাজস্থানের মন্দির, যেখানে নাকি পাথরের মূর্তি হয়ে যান সন্ধের পর কেউ ঢুকলে

1041
Image & Information Source: Google

রাজস্থান রহস্যে মোড়া রাজ্য! রাজপথ অলি-গলি থেকে, কোটি কোটি রহস্য লুকিয়ে রয়েছে প্রতিটি বালুকণায়! বিশেষজ্ঞরা আজও কিনারা করতে পারেননি বহু স্থাপত্যের রহস্যর! যেমন কিরাডু মন্দির বারমের জেলার। স্থানীয়দের বিশ্বাস, সন্ধের পর যদি কেউ এই মন্দিরে প্রবেশ করেন, হয় পরিণত হন পাথরের মূর্তিতে, নইলে তাঁর মৃত্যু হয়।

হঠাৎ এমন বিশ্বাস গড়ে উঠল কেন স্থানীয়দের মনে ? নেপথ্যে একটি ঘটনা রয়েছে! এক সন্ন্যাসী এসেছিলেন বহু বছর আগে কিরাডু মন্দিরে। একদল শিষ্য তাঁর সঙ্গে ছিলেন! একদিন খুব অসুস্থ হয়ে পড়েন তাঁর এক শিষ্য। কিন্তু তাঁকে কোনওভাবে সাহায্য করেননা গ্রামবাসীরা। গ্রামবাসীদের এহেন আচরণে মারাত্মক রেগে যান সন্ন্যাসী। তিনি অভিশাপ দেন- যেসম্ত মানুষের হৃদয় পাষাণের মতো, তাদের মানুষের রূপে থাকার কোনও অধিকার নেই! পাথর হয়ে যাওয়া উচিত।

শুধুমাত্র গ্রামবাসীদের মধ্যে সাহায্য করেছিলেন একজন মহিলা শিষ্যদের! তাঁর ওপর দয়া হয় সন্ন্যাসীর, তিনি মহিলাকে বলেন ওই গ্রাম ছেড়ে চলে যেতে অন্যথা তিনিও পাথরের মূর্তিতে পরিণত হবেন। কিন্তু মাথায় রাখতে হবে, যেন ভুলেও পিছনে ফিরে না তাকান যাওয়ার সময়। পাথর হয়ে যাবেন তাহলে তিনিও।

মহিলার মনে সন্দেহ হয় সন্ন্যাসীর কথায়! সত্য না মিথ্যা সন্ন্যাসীর কথা ? তিনি পেছনে ফিরে তাকান প্রমাণ পেতে এবং পাথরের মূর্তি হয়ে যান মুহূর্তে। বারমের জেলার বাসিন্দাদের মনে সেই থেকে বিশ্বাস, মানুষ পাথর হয়ে যাবে সন্ধের পর কিরাডু মন্দিরে প্রবেশ করলে! কোনও বৈজ্ঞানিক ব্যাক্ষা নেই এর, কিন্তু আজও মানুষ এই বিশ্বাসকেই মনে আকড়ে ধরে রয়েছেন!

আরও পড়ুনঃ  অবাক হলেও সত্যি! সেলফিতে ছড়াচ্ছে উকুন, বলছে গবেষণা

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.