ব্রিগেদের ভির দেখে উচ্ছসিত নেতারা

ব্রিগেদের ভির দেখে উচ্ছসিত নেতারা
নিজস্ব ছবি

রবিবার হল বাম কংগ্রেস আইএসএফ জোটের ব্রিগেড সমাবেশ। সমাবেশে ভিড় দেখে খুশি বাম নেতারা। এবারের ব্রিগেডে তেমন নামভারী কোনও বক্তা নেই। অসুস্থতার কারণে নেই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। তা সত্ত্বেও ব্রিগেড ঘিরে বাম কর্মী-সমর্থকদের উন্মাদনা চোখে পড়ার মত।

গতরাত থেকেই ‘টুম্পা’-কে নিয়ে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্রিগেডে ভিড় জমাতে শুরু করেছেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, এই প্রথম কংগ্রেসের সঙ্গে ব্রিগেডের সমাবেশ করছে বামেরা। জোটের জট পুরোপুরি না কাটলেও একইমঞ্চে হাজির আছেন ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের নেতৃত্ব। সেখান থেকেই বিধানসভা ভোটের আগে ‘শক্তি ‘ হিসেবে নিজেদের যাচাই করে নিতে চাইছে বাম এবং কংগ্রেস।

এদিনের সমাবেশে ভিড় দেখে বিমান বসু বলেন, যাঁরা দূরবীন দিয়ে আমাদের দেখার কথা বলেন, তাঁরা দেখুন কত লোক হয়েছে। এমন সমাবেশ কখনও দেখেনি ব্রিগেড। তৃণমূল ও বিজেপি একদিকে। অন্যদিকে আমরা সবাই। ব্রিগেডের জমায়েতে আপ্লুত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী । বক্তব্যের শুরুতেই বললেন, “এত বড় সভায় বক্তব্য রাখার সুযোগ জীবনে এই প্রথম।” শাসকদলকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বললেন, “একুশে পরিবর্তন হবেই।”

এদিন ব্রিগেডে আমজনতার ভিড় এবং এই রাজনৈতিক মেলবন্ধনকে ‘ঐতিহাসিক’ বলে উল্লেখ করেছেন বাম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি। তাঁর কথায়, “এবারের ব্রিগেড সবদিক থেকেই ঐতিহাসিক। এই ভিড় বুঝিয়ে দিচ্ছে এ রাজ্যের মানুষ পরিবর্তন চাইছে। ব্রিগেডের ভিড় বামেদের পাশাপাশি স্বস্তি দিয়েছে তৃণমূলকেও।কারণ বাম ভোট বামের ঝুলিতে ফিরলে লাভের কড়ি ঘরে তুলতে পারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল।

এদিনের সমাবেশে উপস্থিত রয়েছেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসু, কংগ্রেসের অধীর চৌধুরি, ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল, কংগ্রেসের নেতা জিতিন প্রসাদ, আইএসএফের নেতা আব্বাস সিদ্দিকি। সহ বাম শরিকদলের যাবতীয় নেতৃত্ব। তারকাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাদশা মৈত্র, সব্যসাচী চক্রবর্তী, শ্রীলেখা মিত্র, কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়।তবে ব্রিগেডে ছিলেননা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.