সর্বনিম্ন দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ, বাড়ছে সুস্থতার হারও

সর্বনিম্ন দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ, বাড়ছে সুস্থতার হারও
সর্বনিম্ন দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ, বাড়ছে সুস্থতার হারও / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ কড়া বিধিনিষেধ, আবার কোথাও লকডাউন এভাবেই দেশব্যাপী করোনার সংক্রমণ রোখার চেষ্টা করা হয়েছিল। তাতে সুফলও মিলেছে। এখন অনেকটাই কমেছে দেশের দৈনিক করোনার সংক্রমণ। কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে দেশের করোনা সংক্রমণ। পাশাপাশি বেড়েছে সুস্থতার হারও। একসময় যেখানে করোনার দৈনিক সংক্রমণ ছিল ৪ লক্ষের বেশি, এখন সেখানে সংক্রমণ কমে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ২০ হাজারের কোঠায়।

এদিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১ লক্ষ ২০ হাজার ৫২৯ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গতকালের থেকে আজ সংক্রমণ অনেকটাই কম। গতকালে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ৩২ হাজার ৩৬৪ জন। মহারাষ্ট্র, দিল্লি, কর্ণাটকের মতো রাজ্যগুলিতে ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণে আসছে করোনার দৈনিক সংক্রমণ। দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৮৬ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮৭৯।

তবে, চরিত্রের পরিবর্তনে এই ভাইরাস আরও মারাত্মক হয়ে উঠেছে। তাই দৈনিক সংক্রমণ কমলেও, গত ২৪ ঘণ্টায় অনেকটাই বেড়েছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা। একদিনে এই মারণ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন ৩,৩৮০ জন। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনার বলি ৩ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮২ জন।

তবে, মানুষ গৃহবন্দি হওয়ার কারণে, ক্রমশ কমছে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে, বর্তমানে দেশে করোনায় চিকিৎসাধীন মোট রোগীর সংখ্যা ১৫ লক্ষ ৫৫ হাজার ২৪৮ জন। এক্সময়ে যেখানে দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকায় হাসপাতালে বেডের অভাব, অক্সিজেনের অভাব ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছিল, এখন সেই অবস্থা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে।

এদিকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই আশার আলো দেখাচ্ছেন করোনাজয়ীরাই গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনামুক্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ৯৭ হাজার ৮৯৪ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে ২ কোটি ৬৭ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫৪৯ জন করোনা থেকে মুক্ত হয়েছেন। আর করোনা টিকা পেয়েছেন ২২ কোটি ৭৮ লক্ষেরও বেশি মানুষ। নীতি আয়োগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, টিকার প্রথম ডোজ দেওয়ার নিরিখে আমেরিকাকে পিছনে ফেলে দিয়েছে ভারত। ভারতে ১৭.২ কোটি মানুষ প্রথম ডোজ পেয়েছেন। তবে টিকাকরণের পাশাপাশি রোগী চিহ্নিত করতে চলছে টেস্টিংও। ICMR-এর রিপোর্ট বলছে, গতকাল ২০ লক্ষ ৮৪ হাজার ৪২১টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চলতি বছরেই করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন বিশেষজ্ঞরা। যদিও করোনা বিধি মেনে এবং টিকা করণের মাধ্যমে তা আটকে দেওয়া সম্ভব বলেই দাবি করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।