অভাবে রাস্তায় মোজা-রুমাল বিক্রি বালকের! সাহায্যের ৫০ টাকা ফিরিয়ে পুরস্কার মিলল ২ লক্ষ টাকা!

অভাবে রাস্তায় মোজা-রুমাল বিক্রি বালকের! সাহায্যের ৫০ টাকা ফিরিয়ে পুরস্কার মিলল ২ লক্ষ টাকা!
অভাবে রাস্তায় মোজা-রুমাল বিক্রি বালকের! সাহায্যের ৫০ টাকা ফিরিয়ে পুরস্কার মিলল ২ লক্ষ টাকা!

সংসারে অভাব! তাই পড়াশোনা ছেড়ে মোজা-রুমাল বিক্রি করতে পথে নামে বছর দশেকের এক বালক। পাঞ্জাবের এক শহরে রাস্তার এক ক্রসিংয়ে মোজা বিক্রি করার সময় এক ক্রেতা তাকে মোজার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে ৫০ টাকা বেশি দিয়ে সাহায্য করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বালকটি সৎ। সেই অতিরিক্ত টাকা নিতে অস্বীকার করে সে। তার সততা দেখে মুগ্ধ হয়ে যান ক্রেতা।

এরপরই ছেলেটির একটি ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরেন সেই ক্রেতা। নির্লোভ সেই ছেলেটিকে দেখে মুগ্ধ হয় নেটিজেনরাও। পাশাপাশি তা নজরে আসে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের। বালকটির অসহায়তা দেখে তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন তিনি। ২ লক্ষ টাকা দিয়ে ছেলেটিকে সাহায্যও করেন তিনি। পাশাপাশি ছেলেটির পড়াশোনার দায়িত্বও নিজের কাঁধে তুলে নেন।

জানা গিয়েছে, ছেলেটির নাম বংশ সিং। পাঞ্জাবের হরিবোয়াল অঞ্চলে থাকে তার জনাসাতেকের পরিবার। তার বাবাও মোজা বিক্রি করেন। এদিকে সংসারে অভাব। তাই দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়াকালীনই লেখাপড়া ছেলে মোজা বিক্রি করতে রাস্তায় নামে বংশ। এরপরই একদিন ক্রেতার সাহায্যের ৫০ টাকা ফিরিয়ে দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে ওঠে ছেলেটি।

মুখ্যমন্ত্রীর নজরে ভাইরাল ভিডিওটি আসা মাত্রই জেলা প্রশাসনের আধিকারিকদের ছেলেটির বাড়িতে পাঠান তিনি। মাত্র ১০ বছরের ছেলের এমন সততা, নিষ্ঠা দেখে তিনি আপ্লুত। ছেলেটির সঙ্গে ভিডিও কলে মুখ্যমন্ত্রী নিজে কথা বলে পুলিশ আধিকারিককে নির্দেশ দেন, দ্রুত যেন ছেলেটির পড়াশোনার ব্যবস্থা হয়। সেই সঙ্গে তাকে দু’লক্ষ টাকা সাহায্য করার প্রতিশ্রুতিও দেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি পরিবারের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, এবার থেকে বংশ স্কুলে যাবে। মুখ্যমন্ত্রীর এহেন সাহায্যে খুশি বংশের পরিবারও।