দলিত ছেলেকে পালিয়ে বিয়ে করায়, শাস্তিস্বরূপ মেয়েকে খুন করল বাবা!

দলিত ছেলেকে পালিয়ে বিয়ে করায়, শাস্তিস্বরূপ মেয়েকে খুন করল বাবা!
দলিত ছেলেকে পালিয়ে বিয়ে করায়, শাস্তিস্বরূপ মেয়েকে খুন করল বাবা! প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ মেয়েটির অপরাধ সে এক দলিত ছেলেকে ভালোবেসে বিয়ে করে, সংসার বাঁধতে চেয়েছিল। বাড়ির এবং বাবার অমতে পালিয়ে বিয়েও করেছিল। কিন্তু সংসার করা আর হল না। বাবার হাতেই খুন হতে হল বছর ১৯-র তরুণীকে।

ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের দৌসা জেলায়। গত সপ্তাহেই রাজস্থান হাইকোর্টে বাবার আপত্তির কথা জানিয়ে, আদালতের সাহায্য চেয়ে মামলা করেছিলেন পিঙ্কি সাহানি নামে ওই তরুণী। ওই তরুণীর অভিযোগ ছিল যে, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি তাঁর বাবা শঙ্কর লাল সাইনির নির্দেশে বাধ্য হয়ে বিয়ে করেন। এদিকে বিয়ের তিনদিনের মধ্যে বাড়ি ফিরেও আসেন। এরপর ২১ ফেব্রুয়ারি নিজের পছন্দের বছর ২১ এর দলিত এক যুবক, নাম রোশন মহাওয়ার-এর সঙ্গে পালিয়ে যান। এই ঘটনার পরের দিনই পুলিশ সুপার অনিল বেনিওয়ালের কাছে মেয়েটির বাবা অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন।

২৬ ফেব্রুয়ারি পিঙ্কি ও রোশন হাইকোর্টে গিয়ে মামলা করেছিলেন সাহায্য চেয়ে। আদালতের পক্ষ থেকে রাজ্য পুলিশকে ওই দম্পতিকে পাহারা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। আদালতের পর্যবেক্ষণ ছিল যে, তাঁদের জীবন এবং স্বাধীনতা সংকটের মধ্যে রয়েছে। পুলিশকে আদালতের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয় যে, ওই দম্পতি যেখানে থাকতে চান সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য।

এরপর ১ মার্চ দৌসার গ্রামে ফিরেছিলেন ওই দম্পতি। সেই দিনই পিঙ্কিকে রোশনের বাড়ি থেকে জোর করে তুলে আনা হয়। পরে তাঁকে মারধর করা হয় এবং শ্বাসরোধ করে পিঙ্কির বাবাই খুন করে। পরে পিঙ্কির দেহ উদ্ধার হয়। বুধবার রাতে, পুলিশি জেরায় নিজের অপরাধ স্বীকার করে নেয় পিঙ্কির বাবা।

উল্লেখ্য, পিঙ্কিকে জোর করে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর, রোশনের পরিবার থেকে দৌসার মহিলা থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। এফআইআর-এ বলা হয় যে, পিঙ্কিকে তাঁদের বাড়ি থেকে বলপূর্বক তুলে নিয়ে যায় পিঙ্কির বাবা এবং পরিবারের অন্যান্যরা। তাঁদের বাড়ি ভাঙচুরের পাশাপাশি রোশনের পরিবারের সদস্যদের প্রতি খারাপ ব্যবহার এবং প্রায় দেড় লাখ টাকা চুরিও করা হয়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.