রাজ্যে নিম্নমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ, উদ্বেগ বাড়িয়ে বাড়ল দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা!

রাজ্যে নিম্নমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ, উদ্বেগ বাড়িয়ে বাড়ল দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা!
রাজ্যে নিম্নমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ, উদ্বেগ বাড়িয়ে বাড়ল দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা! / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ রাজ্যে করোনা সংক্রমণে লাগাম টানতে কার্যত লকডাউনের পথেই হাঁটল সরকার। শনিবারই সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ১৬ মে সকাল ৬ টা থেকে দু’সপ্তাহের জন্য রাজ্যে জারি হচ্ছে ‘প্রায় লকডাউন’। এই অবস্থা জারি থাকবে ৩০ মে পর্যন্ত। বন্ধ থাকবে সরকারি ও বেসরকারি দফতর। জরুরি পরিষেবা ছাড়া প্রায় সবই বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

আর এই ঘোষণার দিনই রাজ্যবাসীর জন্য স্বস্তির খবরও রয়েছে। স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, নিম্নমুখী রাজ্যে করোনা সংক্রমণের গ্রাফ। যদিও উদ্বেগ বাড়িয়েছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা। আবার বেড়েছে সুস্থতার হারও। সেটাও এই মুহূর্তে আশার আলো দেখাচ্ছে করোনা বিরুদ্ধে লড়াইয়ে।

শনিবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় এ রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ৫১১ জন। যা গতকালের তুলনায় সামান্য কম। শুক্রবার এই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২০,৮৪৬ জন। এনিয়ে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১১ লক্ষ ১৪ হাজার ৩১৩ জন। রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে প্রথম স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। এই জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৪ হাজার ২৭৯ জন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা। এই জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৫১ জন। অন্যদিকে হাওড়া, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, নদিয়া এবং হুগলি থেকেও এসেছে নতুন সংক্রমণের খবর। এই চার জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজারের বেশি।

দৈনিক সংক্রমণ কমলেও, চিন্তা এবং উদ্বেগ দুইই বাড়িয়েছে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা। একদিনে বাংলায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৪৪ জনের। শুক্রবারই এই সংখ্যাটা ছিল ১৩৬ জন। দৈনিক মৃত্যুর নিরিখেও প্রথম স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। একদিনে সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৩৫ জনের। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৩০ জনের। এদিন করোনায় রাজ্যে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৩ হাজার ১৩৭ জন।

এতো উদ্বেগের মধ্যেও আশার আলো দেখাচ্ছে করোনা যোদ্ধাদের নিরলস লড়াই। তাঁদের প্রচেষ্টায় এবং লড়াইয়ে করোনাকে পরাস্ত করে সুস্থ হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ঘরে ফিরেছেন ১৯ হাজার ২১১ জন। যা দৈনিক সংক্রমণের থেকে সামান্য কম। রাজ্যে এনিয়ে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা দাঁড়াল ৯ লক্ষ ৬৯ হাজার ২২৮ জন। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনায় সুস্থতার হার ৮৬.৯৮ শতাংশ। রাজ্যে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ৩১ হাজার ৯৪৮ জন।