ফের কলকাতায় শুরু হচ্ছে কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ! কারা অগ্রাধিকার পাবেন জেনে নিন বিস্তারিত

ফের কলকাতায় শুরু হচ্ছে কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ! কারা অগ্রাধিকার পাবেন জেনে নিন বিস্তারিত
ফের কলকাতায় শুরু হচ্ছে কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ! কারা অগ্রাধিকার পাবেন জেনে নিন বিস্তারিত

ফের শহর কলকাতায় শুরু হচ্ছে টীকাকরন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকেই কলকাতা পুরসভার ১০২টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই হবে এই টীকাকরন। তবে এবারের বিশেষত্ব হল আগামীকাল থেকে প্রথম ৪৫ বছরের ঊর্ধ্বে টীকাকরন হবে। বুধবার এমনটাই জানিয়েছেন কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য অতীন ঘোষ।

এদিন অতীন বাবু বলেন, আগামীকাল থেকেই ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। তবে শনিবার থেকে এই টীকাকরন প্রক্রিয়া চালু হওয়ার কথা থাকলেও আর সময় নস্ট করতে রাজি নয় পুর কর্তৃপক্ষ। সেই কারণে আগামীকাল দুপুর দুটো থেকে পাঁচটা পর্যন্ত মিলবে ভ্যাকসিন।

তবে এবার ভ্যাকসিন নিতে হলে হোয়াটসঅ্যাপে স্লট বুক করতে হবে। ৮৩৩৫৯৯৯০০০ নম্বরে রেজিস্ট্রেশন করতে হচ্ছে। আজ থেকেই করা যাচ্ছে রেজিস্ট্রেশন। শহরে পুরসভার প্রতিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে ৫০ জনকে কোভিড টিকা দেওয়া হবে। তবে পুরসভার ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য পুরসভার অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। নাগরিকরা যাতে বাড়ির কাছের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভ্যকসিন নিতে পারেন তার জন্য তাঁদের ভ্যাকসিন বুক করার সময় ওয়ার্ড নম্বর উল্লেখ করতে হবে।

এর আগে এই নম্বরটির মাধ্যমেই হোয়াটসঅ্যাপের সাহায্যে দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণের প্রক্রিয়া শুরু করেছিল কলকাতা পুরসভা। সেবার জানানো হয়েছিল, প্রথমে কলকাতা পুরসভার দেওয়া নম্বরটিতে নিজের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে ‘Hi’ লিখে পাঠাতে হবে। তারপর জানাতে হবে কবে প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন সেই দিনক্ষণ। কোনও একটি আইডি গ্রুফ জমা করতে হবে। যার পর সুযোগ পাওয়া যাবে ভেন্যু বা টিকাকরণ কেন্দ্র বেছে নেওয়ার। সেখানে গিয়ে করতে হবে স্লট বুকিং। গোটা প্রক্রিয়াটির পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছিল ‘হোয়াটসঅ্যাপ বোট’।

বেশ কিছুদিন ভ্যাকসিনের জোগান কম থাকায় গোটা রাজ্যেই বন্ধ ছিল প্রথম ডোজের টিকাকরণ। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, শুধুমাত্র দ্বিতীয় ডোজের টিকাকরণ করা হবে। ইতিমধ্যে কেন্দ্রের সঙ্গে বেশ কয়েক দফায় ভ্যাকসিনের জোগান নিয়ে রাজ্যের সংঘাতও হয়েছে।

কিন্তু ফের কয়েক দফায় ভ্যাকসিন আসায় গোটা রাজ্যে ভ্যাকসিনের ভোগান্তি তেমন ভাবে না কমলেও খানিকটা স্বাভাবিক করার চেষ্টা করা হচ্ছে পরিস্থিতিকে। তাই বেশ কয়েকবার ভ্যাকসিন আসার পরেই ফের কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চালু হচ্ছে প্রথম ডোজ দেওয়ার প্রক্রিয়া।