শুধুমাত্র মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করার অপরাধে, নিজের ভাইয়ের প্রাণ কেড়ে নিল দাদা!

শুধুমাত্র মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করার অপরাধে, নিজের ভাইয়ের প্রাণ কেড়ে নিল দাদা!
শুধুমাত্র মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করার অপরাধে, নিজের ভাইয়ের প্রাণ কেড়ে নিল দাদা!

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ কি দিন এল! কাউকে প্রাণে মেরে ফেলা এতোটাই সহজ হয়ে গেছে যে, সামান্য সামান্য কারণে মানুষের প্রাণ কেড়ে নেওয়ার অধিকার জন্মে যায় আর একজনের। দিন যতো যাচ্ছে, মানুষের মানবিকতা, ধৈর্য, বোধবুদ্ধি সব লোপ পেতে বসেছে।

আর সেই কারণেই, শুধুমাত্র মোবাইল ডেটা ব্যবহার করার অপরাধে বড় ভাই কোন সাতপাঁচ না ভেবেই, ছোট ভাইকে কুপিয়ে খুন করল। ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের যোধপুরে। বছর ২৩-এর এক যুবক এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে। দাদার মোবাইল ডেটা ব্যবহার করে ছোট ভাই গেম খেলছিল। গেম খেলতে খেলতে একসময় শেষ হয়ে যায় ডেটা।

এরপর নিজের মোবাইল ব্যবহার করতে গিয়ে, বছর ২৩-এর যুবক রমন দেখতে পায় যে, ইন্টারনেট ডেটা শেষ হয়ে গেছে তার মোবাইলের। তখনই সে ভাইকে বাড়ির ছাদে নিয়ে গিয়ে, তার কাছে জানতে চায় যে, সে তার মোবাইলের ডেটা ব্যবহার করেছে কিনা!

প্রথমে এই দাদার মোবাইলের ইন্টারনেট ডেটা ব্যবহার কথা অস্বীকার করলেও, পরে সে মেনে নেয় যে, সে গেম খেলায় ডেটা শেষ হয়ে গেছে। এই কথা শোনার পরই রাগে অন্ধ হয়ে, ছোট ভাইকে বারবার ছুরিকাঘাত করতে থাকে। এর জেরে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার ভাইয়ের।

এরপর, বাড়ির বাকি সদস্যরা ছাদে ছোট ছেলে রয়কে রক্তাক্ত অবস্থায় পায়। তাঁকে সেখান থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা রমনের ভাইকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এদিকে ভাইকে খুন করার পর, সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

শুক্রবার পুলিশ তাকে রেলস্টেশন থেকে গ্রেফতার করে। রমন তার দোষের কথা স্বীকার করে নিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশকে সে জানিয়েছে, তার মোবাইলের ডেটা ব্যবহার করার জন্যই, রাগের মাথায় নিজের ভাই রয়কে সে খুন করেছে।

এই ঘটনায় সকলেই হতবাক। সামান্য মোবাইল ডেটা ব্যবহারের জন্য কেউ কী করে নিজের ভাইকে খুন করতে পারে! সে প্রশ্নই উঠছে। কোথায় যাচ্ছে মানুষের মানসিকতা! জানা যাচ্ছে, ওই যুবকের মানসিক অবস্থাও খতিয়ে দেখা হবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.