আজই সন্ধে বা রাতের মধ্যেই রাজ্যে ঢুকবে ৪ লক্ষ কোভিশিল্ড-এর ডোজ

আজই সন্ধে বা রাতের মধ্যেই রাজ্যে ঢুকবে ৪ লক্ষ কোভিশিল্ড-এর ডোজ
আজই সন্ধে বা রাতের মধ্যেই রাজ্যে ঢুকবে ৪ লক্ষ কোভিশিল্ড-এর ডোজ

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশের পাশাপাশি রাজ্যের করোনা পরিস্থিতিও উদ্বেগজনক। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে সংক্রমণ রুখতে এবং অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে।

এই পরিস্থিতিতে আজই রাজ্যে আসছে ৪ লক্ষ কোভিশিল্ড-এর ডোজ। তবে, জানা গিয়েছে যে, এই ভ্যাকসিন রাজ্যে আসছে ৪৫ ঊর্ধ্বদের জন্য। কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ৪৫ ঊর্ধ্বদের জন্য এই চার লক্ষ ভ্যাকসিনের ডোজ পাঠানো হচ্ছে। আজ সন্ধে বা রাতের মধ্যেই রাজ্যে ঢুকবে এই চার লক্ষ ভ্যাকসিন। যদিও স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে ক্রমাগত যোগাযোগ রাখা হচ্ছে কেন্দ্রের সঙ্গে।

এদিকে কলকাতায় অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে ১ মে থেকে চালু হয়েছে অক্সিজেন পার্লার। করোনা পরিস্থিতিতে ক্রমাগত বাড়ছে অক্সিজেনের চাহিদা। এই পরিস্থিতিতে অক্সিজেন পেতে কোনওরকম সমস্যা যাতে না হয়, সেই দিকেই নজর রয়েছে রাজ্য সরকারের। আলিপুরের উত্তীর্ণ সভাঘরে এই অক্সিজেন পার্লার শুরু হয়েছে। জানা গিয়েছে, এই পার্লার থেকে সুবিধামত অক্সিজেন গ্রহণ করার সুবিধা পাবেন মানুষ।

তবে, এসবের মধ্যে কিছুটা হলেও আশার খবর হল যে, টানা বেশ কিছু সপ্তাহ ধরে করোনার সংক্রমণের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী থাকার পর, এবার সেই গ্রাফ নিম্নমুখী। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ ক্রমশ বাড়তে থাকায় নাজেহাল অবস্থ হয়েছিল দেশবাসীর। অবশেষে একটু স্বস্তি খবর যে, ধীরে ধীরে কমছে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা। গত ৩০ এপ্রিল দেশে দৈনিক করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ৪ লক্ষ পার করেছিল। ৩ মে সেই সংখ্যা আরও কমে হয় ৩,৬৮,১৪৭। আর আজ, ৪ মে সংখ্যাটা নেমে দাঁড়িয়েছে ৩ লক্ষ ৫৭ হাজার ২২৯ জনে।

তবে, সোমবারের তুলনায় দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে কিছুটা। সোমবার করোনায় মারা গিয়েছিলেন ৩ হাজার ৪১৭ জন, সেখানে মঙ্গলবার ৩ হাজার ৪৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছে। করোনায় সবচেয়ে বিধ্বস্ত হয়েছিল যে রাজ্যগুলি তার মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্র, গুজরাত, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ, তেলঙ্গানা, উত্তরাখণ্ড। এইসব রাজ্যেও এখন ধীরে ধীরে সংক্রমণের গ্রাফ নিম্নমুখী। তেমনটাই লক্ষ্য করা গিয়েছে।