বছর চারেকের খুদের কীর্তি কাঁপাচ্ছে নেটদুনিয়া! মায়ের স্মার্টফোন পেয়েই সাড়ে ৫ হাজার টাকার খাবার অর্ডার খুদের!

বছর চারেকের খুদের কীর্তি কাঁপাচ্ছে নেটদুনিয়া! মায়ের স্মার্টফোন পেয়েই সাড়ে ৫ হাজার টাকার খাবার অর্ডার খুদের!
বছর চারেকের খুদের কীর্তি কাঁপাচ্ছে নেটদুনিয়া! মায়ের স্মার্টফোন পেয়েই সাড়ে ৫ হাজার টাকার খাবার অর্ডার খুদের!

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ শুধুমাত্র বড়রাই নয়, বর্তমানে ছোটদেরও স্মার্টফোনের প্রতি আসক্তি ক্রমবর্ধমান। নিজের নেই তো কী! বাবা বা মায়ের তো আছে। একবার তা হাতের নাগালের মধ্যে পেলেই হল। একেবারে সনায় সোহাগা। বড়দের মতোই ছোটরাও এখন স্মার্টফোনের সব খুঁটিনাটি বিষয়ই জানে।

এই স্মার্টফোনের প্রতি আসক্তির সবথেকে বড় কারণ হল, এই ফোনের এক ক্লিকেই গোটা বিশ্ব এক লহমায় আপনার হাতের মুঠোর মধ্যে চলে আসবে। যা চাই তাই পেয়ে যাবেন, ঘরে বসে। আর এই স্মার্টফোন নিয়ে কেরামতি করতে গিয়েই, সাংঘাতিক এক কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলল এক খুদে। ওই খুদের কীর্তি তার মা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। বছর চারেকের এই খুদের কীর্তিই এখন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ব্রাজিলের এক মহিলা সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে তাঁর চার বছরের ছেলের ছবি পোস্ট করেছেন। ওই পোস্টে দেখা গিয়েছে, তাঁর সন্তান বিভিন্ন রকমের খাবারদাবার টেবিলে সাজিয়ে নিয়ে, তার সামনে বসে আছে। ওই মহিলার পোস্ট করা ছবিতে যে খাবারগুলি দেখা যাচ্ছে, ক্যাপশনে তার বর্ণনাও দিয়েছেন তিনি সবিস্তারে। ওইসব খাবারের মধ্যে রয়েছে ৬টি হ্যামবার্গ মিলস, ৬টি ম্যাকডোনাল্ড হ্যাপি স্ন্যাকস. ৮ টয়স (এক্সট্রা), চিকেন ২টি (বড়) যাতে ১২টি করে নাগেটস ছিল। এছাড়াও সঙ্গে ছিল ১টি পটাটো চিপস উইথ বেকন(বড়), ১০টি মিল্কশেকস, ২টি টপ সনডে স্ট্রবেরি, ২টি অ্যাপেল টারটেলস, ২টি ম্যাকফলুরি, ৮টি জলের বোতল, ১ গ্লাস গ্রেপ জুস, ২টি সস (এক্সট্রা)।

ছেলের কাণ্ড এবং এত খাবার দেখার পর, ওই মহিলার কি প্রতিক্রিয়া হয়েছিল, তারও বর্ণনা তিনি দিয়েছেন পোস্টে। তিনি লিখেছেন, ‘আমি হেসেছিলাম, কেঁদেছিলাম এবং তারপরে মিল্কশেক টেস্ট করে, ফাস্টফুড খেতে বসে পড়লাম সোমবার। অবিশ্বাস্য, আমার বন্ধুরা।’ মায়ের স্মার্টফোন হাতে পেয়ে ছেলে যে, সাড়ে ৫ হাজার টাকার খাবার অর্ডার করে, সেকথাও তিনি এই পোস্টে জানিয়েছেন।

বছর চারেকের খুদের এই কীর্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আসতেই, তা ভাইরাল হতে বেশি সময় লাগেনি। ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয় ওই পোস্ট। মুহূর্তের মধ্যেই ১ লক্ষের বেশি লাইক পড়ে ওই পোস্টে। সঙ্গে কমেন্ট তো রয়েইছে। অজস্র মন্তব্য এসেছে। খুদে দুষ্টুমির কথা জানার পরও, তাঁকে আদর, ভালবাসা জানিয়েছেন নেটিজেনরা। কেউ কেউ যেমন তাঁকে জিনিয়াস বলে উল্লেখ করেছেন। আবার তেমনই কেউ তো আবার কয়েক ধাপ এগিয়ে, ওই খুদেকে সামনাসামনি দেখার ইচ্ছা প্রকাশও করেছেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.