৪৫ বছরের প্রতিবেশী মহিলার লালসার শিকার নাবালক! জানাজানি হতেই পলাতক মহিলা

৪৫ বছরের প্রতিবেশী মহিলার লালসার শিকার নাবালক! জানাজানি হতেই পলাতক মহিলা
৪৫ বছরের প্রতিবেশী মহিলার লালসার শিকার নাবালক! জানাজানি হতেই পলাতক মহিলা / প্রতীকী ছবি

ফের ভয়াবহ ধর্ষণের ঘটনা উত্তরপ্রদেশে৷ এবারের শিকার এক নাবালক কিশোর। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের সিদ্ধার্থনগরে। সে এলাকারই বছর ৪৫-এর এক মহিলার নিয়মিত ধর্ষণের শিকার হত নাবালক কিশোর। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে চাঞ্চল্য। যদিও অভিযুক্ত মহিলা এখন পলাতক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মধ্যবয়স্কা মহিলাটি সিদ্ধার্থনগরেরই বাসিন্দা। কিশোরটি তার প্রতিবেশী৷ ২০১৬ সালের ১০ জুলাই, নাবালক ওই কিশোরটিকে প্রথমবার শারীরিকভাবে হেনস্থা করে মহিলাটি। তাকে ধর্ষণও করে সেই মহিলা। কিশোরটি তখন ক্লাস ইলেভেনের ছাত্র।

এরপর নিয়মিত তাকে ধর্ষণ করতে থাকে সেই মহিলা। স্থানীয় এলাকাতে টিউশনি পড়তে যেত সেই কিশোর। সেই পথেই কিশোরটিকে নিজের ঘরে ডেকে নিয়মিত যৌন অত্যাচার চালাতে থাকে ওই মহিলা। এভাবেই প্রায় ৪ বছর মহিলার যৌন লালসার শিকার হয় নাবালক ওই কিশোর। তবে সেসময় লজ্জা এবং ভয়ে কাউকেই সে কথা জানাতে পারেনি সে।

গত বছরের ২০ ডিসেম্বর, দু’জনের সঙ্গে নির্যাতিত ছেলেটির বাড়ি যায় ওই মহিলা। বর্তমানে সে কলেজের ছাত্র। দুজনের একজনকে নিজের মেয়ের পরিচয় দিয়ে নির্যাতিত যুবকটির সঙ্গে তার বিয়ে দিতে চায় মহিলাটি। তা না হলে পূর্বের বিভিন্ন কার্যকলাপ ফাঁস করারও হুমকি দেয় সে। এরপরই যুবকটি নিজের মুখ খোলে। জানাজানি হয় সমস্ত ঘটনা।

ঘটনাটি জানার পর পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান যুবকের পরিবার। স্থানীয় থানায় পসকো আইনের আওতায় অভিযোগটি দায়ের করা হয়। গত বৃহস্পতিবার, ফৌজদারি দণ্ডবিধির ১৫৬(৩) ধারায় রায় দান করে আদালত। সেই অনুযায়ী এফআইআরও দায়ের করা হয়েছে। যদিও অভিযুক্ত মহিলাটি এখন পলাতক। তবে পুলিশ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। মহিলাটির তল্লাশিও শুরু করেছে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.