মণিপুর-মায়নমার সীমান্তে অসম রাইফেলসের কনভয়ে জঙ্গি হামলা! শহিদ কমান্ডিং অফিসার সহ ৬

মণিপুর-মায়নমার সীমান্তে অসম রাইফেলসের কনভয়ে জঙ্গি হামলা! শহিদ কমান্ডিং অফিসার সহ ৬ / প্রতীকী ছবি
মণিপুর-মায়নমার সীমান্তে অসম রাইফেলসের কনভয়ে জঙ্গি হামলা! শহিদ কমান্ডিং অফিসার সহ ৬ / প্রতীকী ছবি

মণিপুর-মায়নমার সীমান্তে চুরাচন্দ্রপুর জেলায় অসম রাইফেলসের এক কনভয়ে বড় জঙ্গি হামলা। ঘটনার জেরে এখনও পর্যন্ত এক কমান্ডিং অফিসার সহ ৬ জওয়ানের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। জানা গিয়েছে, অসম রাইফেলসের ওই কমান্ডিং অফিসারের নাম বিপ্লব ত্রিপাঠি। তিনি ছাড়াও নিহতের তালিকায় রয়েছেন বিপ্লবের স্ত্রী, সন্তান, গাড়ির চালক সহ আরও দুজন জওয়ান।

সূত্রের খবর, পরিবারের সঙ্গে মায়ানমার সীমান্ত থেকে একটি কনভয় নিয়ে ফিরছিলেন ৪৬ অসম রাইফেলসের কম্যান্ডিং অফিসার কর্নেল বিপ্লব। ওই কনভয়ে অফিসারের পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও ছিলেন সেনার অন্যান্য জওয়ান ও কুইক অ্যাকশন টিমের সদস্যরা। সেসময়ই জঙ্গিদের আচমকা হামলায় মৃত্যু হয় ওই কম্যান্ডিং অফুসার ও তাঁর স্ত্রী-সন্তানের। পাশাপাশি একাধিক সেনা জওয়ানও শহিদ হয়েছেন বলে খবর। যদিও এই ঘটনায় এখনও সরকারি কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি। তবে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা।

কিন্তু কোন জঙ্গি সংগঠন ওই হামলার সঙ্গে জড়িত? তা এখনও স্পষ্ট জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা, মণিপুরের কোনও বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন এই হামলা চালিয়েছে। মণিপুরের পিপলস লিবারেশন আর্মির উপর সন্দেহ যাচ্ছে। আপাতত দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়েছেন সেনা জওয়ানরা। নিহত ও আহতদের উদ্ধার করার চেষ্টা চালাচ্ছেন তাঁরা। একই সঙ্গে যারা ওই হামলার সঙ্গে জড়িত তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে। দোষীদের খুঁজে বের করে দ্রুত শাস্তির ব্যবস্থাও করা হবে।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক অতীতে এটাই হল সেনাকে টার্গেট করে উত্তরপূর্ব ভারতে করা সবচেয়ে বড় জঙ্গি হামলা। ইতিমধ্যেই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং। ট্যুইটে তিনি লেখেন, ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। যারাই এই কাজ করুক, তাদের কঠোর শাস্তি পেতে হবে।