বিকৃত মানসিকতা! প্রতিবেশীর পোষ্য কুকুরকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে

বিকৃত মানসিকতা! প্রতিবেশীর পোষ্য কুকুরকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে
বিকৃত মানসিকতা! প্রতিবেশীর পোষ্য কুকুরকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আবারও বিকৃত যৌন মানসিকতার উদাহরণ প্রকাশ্যে এল। প্রতিবেশীর পোষ্য কুকুরকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল হরিয়ানার বছর ৬৭-র এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে। প্রতিবেশীর অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত বৃদ্ধকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কীভাবে একজন মানুষ এমন ঘৃণ্য কাজ করতে পারেন, তা ভেবেই অবাক হচ্ছেন প্রতিবেশীরা। এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়।

জানা গিয়েছে, হরিয়ানার গুরুগ্রামে সোহনা এলাকার বাসিন্দা মুকেশ নামক এক ব্যক্তির দু’টি পোষ্য ছিল। এর মধ্যে একটি মেয়ে এবং একটি পুরুষ কুকুর। ২৮ তারিখ আচমকাই মেয়ে কুকুরটি নিখোঁজ হয়ে যায়। ওই ব্যক্তির কথায়, ‘আমি বাড়ি থেকে বেরিয়ে  ওকে খুজতে শুরু করি। সেই সময়ই ওর ডাক শুনতে পেয়ে বুঝতে পারি, সুরেশের বাড়িতে রয়েছে আমার পোষ্য। তারপরই দেখতে পাই নিজের বাড়িতে ওকে নিয়ে গিয়ে ওর সঙ্গে যৌনতা করছে বৃদ্ধ। দেখে আমি হতভম্ব হয়ে যাই। নিজের মোবাইল ফোনে ঘটনাটা রেকর্ড করতে থাকি।’

এরপরই গোটা এলাকায় ওই বৃদ্ধের কুকীর্তির কথা ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু অভিযুক্ত তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ হেলায় উড়িয়ে দেন। যদিও শেষরক্ষা হয়নি। শেষপর্যন্ত মোবাইলের ফুটেজই ধরিয়ে দেয় অভিযুক্তকে। কুকুরটির মালিক আরও জানিয়েছেন যে, ‘আমার সঙ্গে ভাগ্যিস ভিডিওটা ছিল। ওটা না দেখলে কেউই বিশ্বাস করতে পারত না যে, একজন বৃদ্ধ ব্যক্তি এই কাজ করতে পারেন।’

এদিকে, এই ঘটনার পরের দিনই মুকেশ পুলিশের দ্বারস্থ হন। তাঁর করা অভিযোগের ভিত্তিতেই ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা ও পশুর বিরুদ্ধে নির্মমতা রোধ আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। অভিযোগ দায়ের করার সময় তাঁর তোলা ভিডিওটিও পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন মুকেশ। এরপরই পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

উল্লেখ্য, এটাই প্রথম নয়। এর আগেও কুকুরের সঙ্গে যৌনতার আরও একটি উদাহরণ সামনে এসেছিল। আইরিশ এক মহিলার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল, নিজের পোষ্যের সঙ্গে যৌনতা করার। এবার হরিয়ানাতেও এমনই ঘটনার নজির সামনে এল। এবার অভিযুক্ত কুকুরের মালিক নয়, মালিকের প্রতিবেশী।