গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণ! কমেছে মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণ! কমেছে মৃত্যু
গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনার দৈনিক সংক্রমণ! কমেছে মৃত্যু / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ রাজ্যে করোনার দৈনিক সংক্রমণে এবং মৃত্যুর সংখ্যায় ওঠানামা অব্যাহত। গত ২৪ ঘণ্টায় অনেকটাই বাড়ল রাজ্যের করোনার দৈনিক সংক্রমণ। তবে, কমেছে মৃত্যুও। সেই সঙ্গে স্বস্তি দিচ্ছে সুস্থতার হারও। নতুন করে ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছে বাংলা। এর সঙ্গেই রয়েছে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার ইঙ্গিতও।

সোমবার সপ্তাহের প্রথম দিনেই রাজ্যে এক ধাক্কায় অনেকটাই কমেছিল করোনার সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে ফের বাড়ল করোনার দৈনিক সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭২৯ জন। গতকালই রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫৭৫ জন। সংক্রমণের নিরিখে প্রথম স্থানে রয়েছে উত্তর ২৪ পরগণা জেলা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৬ জন। গতকালের থেকে সংক্রমণ সামান্য কম এই জেলায়। এই জেলায় বেশ কয়েকদিন পরে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ফের ১০০ থাকার পর, তা ফের ১০০ নিচে নামল। দ্বিতীয় স্থানে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে জলপাইগুড়ি। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৮ জন। তৃতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯ জন। তাছাড়া বাকি সব জেলা থেকেই এদিন কমবেশি নতুন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। ফলে, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৫ লক্ষ ৩০ হাজার ২৪ জন।

রাজ্যে কমেছে মৃত্যু গত ২৪ ঘণ্টায়। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৯ জন। গতকালের থেকে কানিক্তা কম। গতকাল রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছিল ১২ জন। মৃতের সংখ্যার নিরিখে শীর্ষে রয়েছে দার্জিলিং। এই জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া মৃতদের মধ্যে ২ জন নদিয়া, ২ জন হাওড়া, ১ জন পূর্ব বর্ধমান ও ১ জন হুগলির বাসিন্দা। ফলে এ রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৮ হাজার ১৭০ জন।

স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হার ঊর্ধ্বমুখী। করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে আশার আলো দেখাচ্ছেন করোনাজয়ীরাই। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাকে পরাস্ত করে সুস্থ হয়েছেন ৭৫৬ জন। যা দৈনিক আক্রান্তের থেকে বেশি। ফলে এ রাজ্যের মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৫ লক্ষ ১ হাজার ৮৭ জন। সুস্থতার হার ৯৮.১১ শতাংশ। কমেছে সক্রিয় বা অ্যাকটিভ করোনা রোগীর সংখ্যা। এদিন রাজ্যের চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজা ৭৬৭ জন।