ভারত সীমান্তে ঢুকে পড়ে ৮ বছরের ছোট্ট পাকিস্তানি এই শিশু! অতঃপর কি ঘটল? দেখুন

ভারত সীমান্তে ঢুকে পড়ে ৮ বছরের ছোট্ট পাকস্থানি এই শিশু! অতঃপর কি ঘটল? দেখুন
ভারত সীমান্তে ঢুকে পড়ে ৮ বছরের ছোট্ট পাকস্থানি এই শিশু! অতঃপর কি ঘটল? দেখুন

ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে পড়েছিল ৮ বছরের ছোট্ট এক পাকিস্তানি শিশু। বিএসএফ জওয়ানদের নজরে আসতেই তাঁরা যে সিদ্ধান্ত নিলেন, তা দেখে চোখ জুড়িয়ে গিয়েছে নেটিজেনদের৷ বাচ্চাটিকে প্রথমে খাবার দেওয়া হয়। তারপর ফ্ল্যাগ মিটিং করে পাকিস্থানি সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হয় তাকে।

গত শুক্রবার, রাজস্থানের বারমেড় জেলায় ঘটেছে এই ঘটনা। সেখানে ভারত-পাক সীমান্ত লাগোয়া এক গ্রাম থেকে বছর আটেকের একটি শিশু ঢুকে পড়ে ভারতের সীমান্তে। তা বিএসএফ জওয়ানদের নজরে পড়লে তাঁরা দেখেন, শিশুটি ভয়ে কান্নাকাটি শুরু করেছে। তা থামাতে বেশ কসরত করতে হয় তাঁদের। শেষমেশ বিস্কুট, চকোলেট আর জল খেতে দেওয়া হয় শিশুটিকে। তারপর তার কান্না থামে। জানা গিয়েছে, শিশুটির নাম করিম খান। পাকিস্তানের নগরপিকার জেলার বাসিন্দা দামান খানের ছেলে সে৷

শিশুটিকে এরপর পাক রেঞ্জার্সের হাতে তুলে দেওয়াও হয়েছে। যা দেখে পাক রেঞ্জার্সও ভূয়সী প্রশংসা করে বিএসএফের। এই প্রসঙ্গে গুজরাট ফ্রন্টিয়ারের ডিজিপি এম এল গর্গ জানিয়েছেন, “শুক্রবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ একজন শিশু ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে পড়ে। জওয়ানরা এরপর শিশুটিকে নিরাপদে পাক সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দেয়। পাক রেঞ্জার্সের তরফ থেকে ভারতীয় সেনার প্রশংসাও করা হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, গত বছর নভেম্বরে বার্মার অঞ্চলের ‘সাজ্জান কা পার’ গ্রামের এক যুবক দুর্ঘটনাক্রমে সীমান্ত পার হয়ে পাক সীমান্তে ঢুকে পড়েন। সেই অপরাধে গত কয়েক মাস ধরে তাঁকে পাকিস্তানের কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছিল। অন্যদিকে, ভারতীয় সেনাবাহিনীর এই মানবিক উদ্যোগটি তার বিপরীতই বলা চলে৷ ঘটনাটি নেটমাধ্যমে ভাইরাল হলে বিএসএফ জওয়ানদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন নেটজনতাও।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.