৮৮ তে পা দিলেন কিংবদন্তি আশা ভোঁসলে, গানের জগতে দিদিই কি প্রতিদ্বন্দ্বী? অকপট আশা ভোঁসলে

৮৮ তে পা দিলেন কিংবদন্তি আশা ভোঁসলে, গানের জগতে দিদিই কি প্রতিদ্বন্দ্বী? অকপট আশা ভোঁসলে
৮৮ তে পা দিলেন কিংবদন্তি আশা ভোঁসলে, গানের জগতে দিদিই কি প্রতিদ্বন্দ্বী? অকপট আশা ভোঁসলে

গানের জগতে মাইল স্টোন তৈরি করেছেন কিংবদন্তি আশা ভোঁসলে। গানের জগতে কয়েক দশক ধরে সুরের তালে মুগ্ধ করে রেখেছেন এই শিল্পী। ৮৮ বছরে পা দিলেন কিংবদন্তি এই শিল্পী। এত বছর ধরে সকলকে দিয়ে গেছেন একাধিক হিট গান। সুরের রাণী বলা যায় আশা ভোঁসলে কে। বাংলা, হিন্দি প্রায় সব জায়গায় নিজের সুরের জাদুতে মাতিয়ে রেখেছেন এই শিল্পী। ভগবানের আশীর্বাদ স্বরূপ পেয়েছেন এই গলা।

ঝুলিতে রয়েছে সহস্র পুরস্কার। জিতে নিয়েছেন জাতীয় পুরস্কারও। তবে গানের জগতে একই সময় ছিলেন তার দিদি লতা মঙ্গেশকর। দুজনেই একই সময় সকলকে একই ভাবে সহস্র গান উপহার দিয়ে গেছেন। অনেকেই বলেন লতা এবং আশা একে ওপরের প্রতিদ্বন্দ্বী। তবে আশা জি সেরকম মনে করেন না। সাক্ষাৎকারে বলেন সেই কথায়। আশার কথায় তিনি দিদির ফ্যান। দিদি লতার গলা অন্যরকম এবং তার গলা অন্যরকম। অনেক অনুষ্ঠানে গিয়ে অনেকেই লতার প্রশংসা করতেন আশার সামনেই। পরে দুজনেই হাসাহাসি করতেন এই বিষয় নিয়ে।

এমনকি বহুবার ডিরেক্টর কোনও গান আগে আশা জির গলায় শুনতেন তারপর লতা জি কে দিয়ে গানটি করাতেন। সাক্ষাৎকারে একটি প্রশ্ন লতা জি কে করা হয় কোনোদিন দুই বোনের মধ্যে দূরত্ব আসেনি? উত্তরে লতা জি বলেন আশা যখন ১৬ বছর বয়সে বিয়ে করেন সেই সময়ে তখন পরিবার এবং তিনি এই বিয়ে সমর্থন করেন নি। এছাড়া দুজনের মধ্যে কোনও দিন প্রতিদ্বন্দ্বী মূলক কথা আসেনি।