গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী দশম শ্রেণীর ছাত্রী, চাঞ্চল্য ছড়ালো এলাকায়

গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী দশম শ্রেণীর ছাত্রী, চাঞ্চল্য ছড়ালো এলাকায়
গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী দশম শ্রেণীর ছাত্রী, চাঞ্চল্য ছড়ালো এলাকায় / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মালদাঃ দশম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো ইংলিশ বাজারের তেলিপুকুরের নেতাজি কলোনি এলাকায়। নিজের বাড়ির শৌচাগারের পাশে থাকা সজনে গাছে ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। জানা গেছে, মৃত ছাত্রীর নাম শাবনাম খাতুন(১৯)। সে ইংলিশ বাজারের প্রন্তপল্লি গার্লস হাই স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। তার পরিবারে রয়েছেন তার মা ও তিন দাদা।

এপ্রসঙ্গে মৃত ছাত্রী শাবনাম এর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিল শবনম। তারই দুই বান্ধবীকে আর্থিক সাহায্য করতে বাড়ির লোকের অজান্তে এক মহাজনের কাছ থেকে তিরিশ হাজার টাকা ধার নিয়ে তাদের দিয়েছিল শবনম। কিছুদিনের মধ্যে সেই টাকা তার বান্ধবীরা ফেরত দিয়ে দেবে এমনটাই কথা ছিল। কিন্তু মহাজনের তাগাদা আসায় সে টাকা বান্ধবীদের কাছে ফেরত চাইতে গেলে তারা টাকা ফেরত করতে অস্বীকার করেন। এই নিয়ে বিবাদ হয় তাদের মধ্যে। অন্যদিকে মহাজন টাকা না পাওয়ায় শবনমের বাড়িতে এসে উপস্থিত হন। চরম অপমানের স্বীকার হতে হয় শবনম ও তার পরিবারের লোকদের। এই অপমান সহ্য করতে না পারায় আত্মহত্যা করে শবনম বলে পরিবারের দাবি।

অন্যদিকে মৃতার দাদা শফিকুল ইসলাম জানান, আমাদের অজান্তে শবনম তার বান্ধবীদের মহাজনের কাছ থেকে টাকা ধার করে তার দুই বান্ধবীদের দেয়। আর সেই টাকা তার বান্ধবীরা ফেরত করতে না পারায় বিপাকে পড়তে হয় আমার বোন শবনমকে। অপমানিত হতে হয় মহাজনের কাছে। তার দুই বান্ধবী আজ এমনটা না করলে হয়তো আমাদের বোনকে এরম অকালে ছেড়ে চলে যেতে হতো না। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারসহ গোটা এলাকায়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.