মালদায় নজরদারি চালাতে গিয়ে আক্রান্ত এক সিভিক ভলেন্টিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মালদাঃ ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হল ইংরেজবাজার থানার অভিযানকারী অফিসারকে। আর তারপরেই রণক্ষেত্রের চেহারা নেই মালদা শহরের বালুচর এলাকা। লাঠিপেটা করে অভিযুক্তকে গাড়িতে তুলতে বাধ্য হয় ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। এই পরিস্থিতিতে অভিযুক্ত পরিবারের লোকেরা পুলিশের কাজে বাধা সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ।

উল্লেখ্য এদিন দুপুরে মালদা শহরের বালুচর এলাকায় জমায়েত ঠেকাতে গিয়ে এক সিভিক ভলেন্টিয়ারকে আক্রান্ত হতে হয়। রীতিমতো ওই সিভিক ভলেন্টিয়ারের জামার কলার হিচরে খানিকটা এলাকা নিয়ে যায় অভিযুক্ত রিন্টু সাহা নামে এক ব্যক্তি। এরপরই পুলিশের অভিযানকারী কর্তারা ছুটে আসলে তাদের সঙ্গে ওই ব্যক্তি ও তার পরিবারের ধাক্কাধাক্কি হয়। এমনকি পুলিশের এক অফিসারকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এরপরই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে অভিযানকারী পুলিশকর্তারা। রীতিমত বাড়ির সামনে থেকে লাঠিপেটা করে মারতে মারতে ওই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে পুলিশের প্রিজন ভ্যানে তোলা হয়। সরকারি কাজে বাধা এবং পুলিশকে হেনস্তা করার অভিযোগে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

পাশাপাশি এদিন গোটা জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ প্রায় আড়াইশো জনকে আটক করেছে। বিশেষ করে মালদা শহরের বিভিন্ন এলাকায় লকডাউন অমান্যকারীদের বাগে আনতে পুলিশকে ব্যাপক লাঠিচার্জ করতে হয় বলে অভিযোগ। রাজ্য সরকারের লকডাউনের নির্দেশের পরেও মালদা শহরের বহু এলাকায় ঠেলাগাড়ি করে ফল, সবজি বিক্রেতাদের লাঠিপেটা করতে বাধ্য হয় পুলিশ। এমনকি অবাঞ্চিত রাস্তা দিয়ে চলাচকারী মানুষদেরও ধরপাকড় করে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.