শনিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২২

কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় স্ত্রী ‘গুরুত্বহীন’! হাসপাতালে রেখে পালানোর অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

০৩:৩৪ পিএম, ডিসেম্বর ৩, ২০২১

কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় স্ত্রী ‘গুরুত্বহীন’! হাসপাতালে রেখে পালানোর অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আজকের সময়ে দাঁড়িয়ে এটা শুনে আশ্চর্য অবাক হলেও, এটাই সত্যি। আজও এমন ঘটনা ঘটছে আমাদের চারপাশে। কন্যা সন্তানের জন্মের জন্য আজও মাকেই দোষী মনে করা হয়। আর তাই তাঁর সঙ্গে যা খুশি তাই করাও যায়। সম্প্রতি কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় এক গৃহবধূকে হাসপাতালে রেখেই পালালো স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের এক বেসরকারি হাসপাতালে। এই ঘটনার ২২ দিন পরে, মালদহ জেলা পুলিশের তৎপরতায় এবং বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে ওই গৃহবধূকে নিয়ে যাওয়া হল হোমে।

জানা গিয়েছে, ২১ বছরের ওই গৃহবধূর নাম পূজা মার্ডি। তাঁর স্বামী সুরজ বেসরা পেশায় শ্রমিক। তাদের বাড়ি বালুরঘাটের মঙ্গলপুর গ্রামে। পরিবারের সূত্রে জানা গিয়েছে, এক বছর আগে তরুণীর বাড়ির অমতে প্রেম করে বিয়ে করেন তাঁরা। এরপর থেকে তরুণীর তাঁর বাড়ির সঙ্গে কোনও যোগাযোগ ছিল না। ১২ নভেম্বর প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে মালদার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন পুজা। কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। এরপর গত ২২ দিন ধরে পরিবারের কোনও সদস্য তাঁর সঙ্গে কোনও যোগাযোগ রাখেনি। তাঁকে দেখতেও আসেনি।

এই অবস্থায় তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানান যে, সুরজের বাড়ি থেকে পুত্র সন্তান চেয়েছিল। কিন্তু কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার কারণেই তাঁকে এভাবে বেসরকারি হাসপাতালে ফেলে রেখে চলে গিয়েছে বাড়ির লোক।এরপর হাসপাতালের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলে, তাঁকে একটি বেসরকারি হোমে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অন্যদিকে পুলিশ এবং হাসপাতালের তরফে তরুণীর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও, তা সম্ভব হয়নি বলেই জানা গেছে। জেলা পুলিশ সুপারের তৎপরতায় ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দক্ষিণ দিনাজপুরের আধিকারিকদেরও ঘটনার কথা জানানো হয়েছে। পরিবারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেই জানা গিয়েছে পুলিশ সূত্রে।