কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব পাস করাতে চলতি মাসে দুদিনের জন্য বসতে চলেছে বিধানসভা অধিবেশন

কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব পাস করাতে চলতি মাসে দুদিনের জন্য বসতে চলেছে বিধানসভা অধিবেশন
কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব পাস করাতে চলতি মাসে দুদিনের জন্য বসতে চলেছে বিধানসভা অধিবেশন

কেন্দ্রীয় কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব পাস করাতে চলতি মাসের ২৭ জানুয়ারি বসতে চলেছে বিধানসভা অধিবেশন। এদিন বিধানসভায় উপস্থিত হয়ে এমনটাই জানিয়েছে শাসকদলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দু’দিন ব্যাপী অধিবেশনে কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব আনার উপর মূলত জোর দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়াও জিএসটি বাবদ বাজার থেকে পাঁচ শতাংশের উপর ঋণ গ্রহণ করার প্রস্তাব আনা হবে বিধানসভায়।

এদিন তৃণমূল মহাসচিব বলেন, ‘আগামী ২৭ জানুয়ারি বিধানসভা আবার যাতে বসে তার জন্য চিঠি দিয়ে গেলাম। বিধানসভায় দু’টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছে, একটি কৃষি বিল সংক্রান্ত। আরেকটি জিএসটির পাঁচ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ গ্রহণ করার একটা প্রস্তাব আমরা নিয়ে আসব। আপাতত এভাবেই চলবে।’ অন্য দিকে কৃষি আইন বিরোধী প্রস্তাব নিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সর্বদলীয় প্রস্তাব আনার কথা ভাবছি। প্রস্তাব রচনা করে তারপর সেটার খসড়া আমরা পাঠাবো সিপিএম এবং কংগ্রেসের দলনেতার কাছে। আমরা সবাই মিলেই চেষ্টা করব যাতে পশ্চিমবঙ্গে কৃষক স্বার্থ রক্ষার করার জন্য এটাকে বাতিল করা যায়।’

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন আগেই বাম ও কংগ্রেসের তরফ থেকে যৌথভাবে শাসকদলের উপর চাপ সৃষ্টি করা হয় অধিবেশন ডাকার জন্য। তারপরই কেন্দ্রীয় কৃষি আইন নিয়ে প্রস্তাব পাস করার কথা জানায় তৃণমূল। যদিও বাম কংগ্রেসের দাবি ছিল লম্বা সময়ের জন্য অধিবেশন ডাকা হোক। কিন্তু গত ৮ জানুয়ারি শিক্ষামন্ত্রী অধিবেশন ডাকার বিষয়টি সংবাদ মাধ্যমকে প্রথম জানিয়েছিলেন। এদিন সেই প্রস্তাব আনার প্রক্রিয়া কার্যত শুরু হয়ে গেল। সরকারের এই প্রস্তাবকে বাম-কংগ্রেস আগে থেকেই স্বাগত জানিয়ে রেখেছে। ইতিমধ্যেই একাধিক কংগ্রেস শাসিত রাজ্য এই আইনকে তাদের রাজ্যে বাতিল করার প্রস্তাব এনেছে অধিবেশন ডেকে। এবার পশ্চিমবঙ্গ সরকারও একই পথে হাঁটতে চলেছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.