ভোটে হারের পরেও, করোনা কালে এই ভাবে কৃষ্ণনগরবাসীর পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী কৌশানি

ভোটে হারের পরেও, করোনা কালে এই ভাবে কৃষ্ণনগরবাসীর পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী কৌশানি
ভোটে হারের পরেও, করোনা কালে এই ভাবে কৃষ্ণনগরবাসীর পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী কৌশানি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ নদিয়াঃ মলয় দেঃ রাজ্যে শেষ হয়েছে ভোট যুদ্ধ। তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ গ্রহণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার বিধানসভা নির্বাচনের আগে একঝাঁক তারকা যোগ দেন তৃণমূলে। তার মধ্যে অন্যতম হলেন কৌশানী মুখার্জী। তবে তিনি বিজেপি প্রার্থী মুকুল রায়ের কাছে হেরে যান। কিন্তু ভোটে হেরে গেলও তিনি জানান, আমি সাধারন মানুষের মনিকোটায় রয়েছি, এটাই আমার জয়, তাই আমি অপরাজেয়। আর তাই সাধারণ মানুষের পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে মূলত নিজের উদ্যোগেই কমিউনিটি কিচেন খুললেন তৃণমূলের তারকা নেত্রী কৌশানী মুখার্জী। যার নাম দেওয়া হয়েছে অপরাজিতা কমিউনিটি কিচেন।

নদিয়ার কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা এলাকার প্রায় ২০০-২৫০ জন প্রতিদিন বিনামূল্যে এই কমিউনিটি কিচেনের খাবার পাবেন। কৌশানী মুখার্জী বলেন, মাত্র অল্প কিছু ভোটের ব্যবধানে আমি পরাজিত হয়েছি। কিন্তু হেরে গেলেও আমি কৃষ্ণনগর উত্তরের প্রতিটি মানুষের মনের মধ্যে রয়েছি। আর সেটাই আমার জয়। আমি মানুষকে কথা দিয়ে ছিলাম সবসময় তাদের পাশে থাকবো। আর পাশে থাকার এটাই সবথেকে উপযুক্ত সময়। কারণ দীর্ঘদিন ধরে একদিকে করোনা সংক্রমণ তার উপর যশের মত ঝড়ের তান্ডব মানুষকে সর্বশান্ত করে তুলেছে। কাজ হারিয়ে আজ তিন বেলা পেট ভরে খাবার জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মানুষ।মূলত সেই দিক মাথায় রেখেই তার এই উদ্যোগ বলে জানান তিনি।

এছাড়া এর পাশাপাশি বলেন সরকার যেমন রেশন দিচ্ছে ঠিক সেই রকমই কিছু খাবার আগামী দিনে যাতে সকালের বাড়ি পৌঁছে দিতে পারেন তার প্রচেষ্টাও চালাচ্ছেন তিনি। অন্যদিকে তিনি বলেন কৃষ্ণনগর উত্তরে আগেও বিধায়ক ছিলেন না এবং এখন বিধায়ক থাকেও তারা বিধায়কহীন হয়েই রয়েছে। তারা তাঁদের বিধায়কের থেকে এই খারাপ সময়ে সাহায্য না পেয়েই তাঁকে ডেকেছে। তাই তিনি মনে করেন তিনি কৃষ্ণনগরবাসীর মনেই আছেন। এদিন এই কমিউনিটি কিচেন এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের কারা মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস।