বাসন্তীর তৃণমূলের সভায় ‘মমতাদিকে ধন্যবাদ’! তবে কি ফুলবদল শ্রাবন্তীর? উস্কে দিলেন জল্পনা

বাসন্তীর তৃণমূলের সভায় 'মমতাদিকে ধন্যবাদ'! তবে কি ফুলবদল শ্রাবন্তীর? উস্কে দিলেন জল্পনা
বাসন্তীর তৃণমূলের সভায় 'মমতাদিকে ধন্যবাদ'! তবে কি ফুলবদল শ্রাবন্তীর? উস্কে দিলেন জল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। এবার সেই জল্পনাকে আরও খানিক বাড়িয়ে দিলেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। সোমবার বাসন্তী ব্লকের মসজিদবাটিতে তৃণমূলের দলীয় অনুষ্ঠানে সভামঞ্চে দেখা গেল অভিনেত্রীকে৷ শুধু তাই নয়, মঞ্চে দাঁড়িয়ে উত্তরীয় গলায় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানিয়ে শ্রাবন্তী বললেন, ‘আমাকে আপন করে নিন।’

এদিন বাসন্তীর এই সভায় হাজির ছিলেন তৃণমূলের পাঁচ বিধায়ক। শওকত মোল্লা, পরেশরাম দাস, সুব্রত মণ্ডলদের সামনেই সভামঞ্চ থেকে শ্রাবন্তী ঘোষণা করেন , “আমি বাংলার জন্য কাজ করতে চাই। আমি বাংলারই মেয়ে। মমতাদি’কে অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের কাছে অনুরোধ, আমাকে আপন করে নিন। আমি আপনাদের জন্যই কাজ করতে চাই।” এরপর মঞ্চেই উত্তরীয় পরিয়ে শ্রাবন্তীকে সম্মান জানানো হয়।

এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে শুরু জোর তরজা। সোমবার সভামঞ্চ থেকেই বাসন্তীর শ্যামল মণ্ডল জানান, শ্রাবন্তী তৃণমূলেরই লোক। অন্যদিকে, ঘাসফুল শিবিরের আরেক বিধায়ক শওকত মোল্লার দাবি, তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন শ্রাবন্তী। যদিও এ বিষয়ে এখনও কোনও স্পষ্ট মন্তব্য করেননি অভিনেত্রী। তৃণমূলের তরফেও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির হাত ধরে রাজনীতির ময়দানে পা দিয়েছিলেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। আট মাস পর গেরুয়া শিবিরের সঙ্গ ত্যাগ করেন অভিনেত্রী। সোশ‍্যাল মিডিয়ায় টুইট করে নিজেই এই খবর জানিয়েছিলেন। তিনি লিখেছিলেন, ‘যে দলের হয়ে গত বিধানসভা নির্বাচনে লড়েছিলাম, সেই বিজেপির সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করছি। বাংলার জন্য তাদের উদ্যোগ ও আন্তরিকতার অভাব দেখেই এই সিদ্ধান্ত।’ যা উসকে দিয়েছিল দলবদলের জল্পনা। যদিও সে সময় অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, “সময়ই উত্তর দেবে।” তবে সোমবার তৃনমূলের সভামঞ্চে সেই জল্পনার আগুনে কিছুটা হলেও যেন ঘি পড়ল!