জম্মু ও কাশ্মীরের লাইন অব কন্ট্রোলের তিনটি গ্রামে বিদ্যুৎ পরিষেবা এল স্বাধীনতার ৭৩ বছর পর!

জম্মু ও কাশ্মীরের লাইন অব কন্ট্রোলের তিনটি গ্রামে বিদ্যুৎ পরিষেবা এল স্বাধীনতার ৭৩ বছর পর!
জম্মু ও কাশ্মীরের লাইন অব কন্ট্রোলের তিনটি গ্রামে বিদ্যুৎ পরিষেবা এল স্বাধীনতার ৭৩ বছর পর!

বংনিউজ২৪X৭ ডেস্কঃ পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী কুপওয়ারা জেলার তিনটি গ্রামে বছরের ছয় মাস ভারী বরফপাত হওয়ার জন্য ১৪,০০০ বাসিন্দা বছরের অর্ধেক সময়ে অন্ধকারে দিন কাটাতেন। জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে দুই বছর ধরে চলা কাশ্মীর পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কর্পোরেশন লিমিটেড একটি প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে, যার ফলে এই তিনটি গ্রামে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পরিষেবা চালু হবে, স্বাধীনতার ৭৩ বছর পরে।

একটি ৩৩ কিলোভল্ট ক্ষমতা সম্পন্ন লাইন এবং একটি সংযোগকারী স্টেশন স্থাপন করা হয়েছে কেরান, মুন্ডিয়ান এবং পাতরু গ্রামের বিদ্যুৎ পরিষেবার জন্য। সব মিলিয়ে ৯৭৯ টি খুটি বসানো হয়েছে এলাকা জুড়ে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, লাইন অব কন্ট্রোল থেকে এই তিনটি গ্রামের দুরত্ব মাত্র ৫০০ মিটার।

করোনা লকডাউনের জন্য কাজ আরও দ্রুত শেষ করা গিয়েছে বলে জানিয়েছেন কাশ্মীর পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কর্পোরেশন লিমিটেড ব্যবস্থাপক অধিকর্তা, মহম্মদ আইজ। তিনি জানিয়েছেন, এলাকার ব্যক্তিদের নিয়েও এই কাজ করতে পারা গিয়েছে, যারা সাধারনতঃ অন্য কাজে ব্যস্ত থাকেন। এলওসির কাছাকাছি অঞ্চল হওয়ায় খুব ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয়েছে। বিশেষ দলকে খুটি এবং হাই এক্সটেনশনের তারের স্থাপনা করতে গিয়ে এলাকার ভৌগোলিক বাঁধার কথা মাথায় রাখতে হয়েছে।

এর আগে গ্রামবাসীরা সৌরবিদ্যুৎ এবং ডিজেল ইঞ্জিন চালিত জেনারেটরের উপর নির্ভরশীল ছিল। বিদ্যুৎ পরিষেবার ফলে উপার্জন বাড়বে বলে আশাবাদী বহু গ্রামবাসী। জমিতে জল দেওয়ার জন্য ইঞ্জিন থেকে কয়েক ঘন্টার জন্য জল দেওয়ার মত বিদ্যুৎ পরিষেবা মিলত, যা এখন ২৪ ঘন্টা পাওয়া যাবে। ফলে, আপেল, আখরোট আর চালের ফলন বাড়বে বলে আশাবাদী কৃষকেরা।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.