ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা এবিডি-র! বিদায়লগ্নে ‘মিঃ ৩৬০’কে নিয়ে আবেগী পোস্ট কোহলির

ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা এবিডি-র! বিদায়লগ্নে 'মিঃ ৩৬০'কে নিয়ে আবেগী পোস্ট কোহলির
ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা এবিডি-র! বিদায়লগ্নে 'মিঃ ৩৬০'কে নিয়ে আবেগী পোস্ট কোহলির

দীর্ঘ ১৭ বছরের বর্ণাঢ্য ক্রিকেট জীবনের ইতি! সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স। শুক্রবারই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে নিজের অপসরের কথা জানালেন দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি সুপারস্টার। তাঁর এই ঘোষণার পরই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। এবিডি ভক্তরা ভেসে গিয়েছেন আবেগে। সতীর্থরা জানাচ্ছেন আগামীর শুভেচ্ছা। এসবের মধ্যে আলাদা করে নজর কেড়েছে ভারতীয় ক্যাপ্টেন (টেস্ট ও ওয়ান-ডে) বিরাট কোহলির পোস্ট। সোশ্যাল মিডিয়ায় যাবতীয় আবেগ উজার করে দিয়ে এবিডিকে নিজের মনের কথা জানিয়েছেন বিরাট।

এবিডির ঘোষণার পরই এদিন বিরাট লেখেন, “তুমি।আমাদের সময়ের সেরা প্লেয়ার। আজ পর্যন্ত এরকম অনুপ্রাণিত আমাকে কেউ করেনি। তুমি যা করেছ আর আরসিবি-কে যা দিয়েছ, তার জন্য তুমি গর্ব করতে পারো বন্ধু। আমাদের সম্পর্ক খেলার ঊর্ধ্বে আর সেটাই থাকবে।” এরপরই ‘কিং কোহলি’ লেখেন, “তোমার অবসরের খবর শুনে আমার মন ভেঙে গিয়েছে। কিন্তু আমি জানি তুমি নিজের আর পরিবারের কথা ভেবে সেরা সিদ্ধান্তই নিয়েছ। তোমাকে খুব ভালোবাসি বন্ধু।” এর উত্তরে এবিডিও বিরাটের উদ্দেশ্যে লেখেন, “তোমাকেও আমি খুব ভালোবাসি।”

উল্লেখ্য, আইপিএলে এবিডি-বিরাট জুটিকে ডাকা হত ‘ব্যাটম্যান-সুপারম্যান’ নামে। ক্রোড়পতি লিগে ‘রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু’ দলের হয়ে দু’জনের যুগলবন্দী চোখ ধাঁধিয়েছে সকলের। বিরাটের নেতৃত্বে নিজের স্বাভাবিক ছন্দে খেলতেই অভ্যস্ত ছিলেন এবিডি। নিজের দিনে ভয়ডরহীন খেলায় ‘মিঃ ৩৬০’ বিপক্ষের ঘুম উড়িয়ে দিতেন। তবে চলতি মরশুমের পরই আরসিবি-র অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন কোহলি৷ এরপর আজ এবিডিও অবসর ঘোষণা করলেন। ফলে ক্রিকেটপ্রেমীদের জন্য এ যেন এক দুঃখের বছর৷

দেশের জার্সিতে ১১৪টি টেস্ট (৮৭৬৫ রান, ২২টি সেঞ্চুরি ও ৪৬টি হাফ সেঞ্চুরি) ২২৮টি ওয়ানডে (৯৫৭৭ রান, ২৫টি সেঞ্চুরি ও ৫৩টি হাফ-সেঞ্চুরি) ও ৭৮টি টি-২০ (১৬৭২ রান) খেলেছেন প্রাক্তন প্রোটিয়া ক্যাপ্টেনের। আইপিএল কেরিয়ারে ১৮৪টি ম্যাচে করেছেন ৫১৬২ রান। এবার সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে পরিবারকে সময় দেওয়াই লক্ষ্যেই অবসরের ঘোষণা তাঁর। আজ আরসিবি-কে দেওয়া একটি বিবৃতিতে এবিডি জানান, ‘আরসিবি-র সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি ও ফলপ্রসূ সম্পর্ক আমার। দেখতে দেখতে ১১টা বছর কেটে গেল। দলের সঙ্গে দারুণ অম্লমধুর সম্পর্ক ছিল। অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে অনেকটা সময় লেগেছে। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতেই এই সিদ্ধান্ত নিলাম।” পাশাপাশি আরসিবি টিম ম্যানেজমেন্ট, বন্ধু বিরাট কোহলি, সতীর্থ, কোচ ও সাপোর্ট স্টাফদের ধন্যবাদও জানিয়েছিলেন তিনি। তবে বাইশ গজ থেকে বিদায় নিলেও ক্রিকেটের ইতিহাসে এবিডির নাম সর্বদা সোনার অক্ষরে লেখা থাকবে। অগণিত ভক্তদের মনেও তাঁর স্মৃতি চিরকাল অমলিন থাকবে।