নোটবন্দির পাঁচবছর! আপনার জমা দেওয়া পুরনো ৫০০-১০০০ এর নোট নিয়ে কী করল RBI?

নোটবন্দির পাঁচবছর! আপনার জমা দেওয়া পুরনো ৫০০-১০০০ এর নোট নিয়ে কী করল RBI? / প্রতীকী ছবি
নোটবন্দির পাঁচবছর! আপনার জমা দেওয়া পুরনো ৫০০-১০০০ এর নোট নিয়ে কী করল RBI? / প্রতীকী ছবি

ঠিক ৫ বছর আগে আজকের দিনেই নোটবন্দির ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাতারাতি বাতিল করা হয়েছিল পুরনো ৫০০ ও ১০০০-এর নোট। তারপরই দেশজুড়ে পড়ে গিয়েছিল শোরগোর। দিকে দিকে বেড়েছিল চাঞ্চল্য। ব্যাঙ্কের সামনে পড়েছিল লম্বা লাইন। সকলের উদ্দেশ্য ছিল একটাই, বাতিল ৫০০ বা ১০০০-এর নোট বদলে নেওয়া। ব্যাঙ্ক ভরে উঠেছিল রাশি রাশি পুরনো পাঁচশো, হাজারের নোটে।

নোটবন্দির সময় প্রায় ১৫ লক্ষ কোটির বেশি পুরনো নোট জমা পড়েছিল ব্যাঙ্কে৷ এবার প্রশ্ন হচ্ছে সেই পুরনো নোটগুলি নিয়ে ঠিক কী করেছিল RBI? বাতিল হওয়া নোটগুলি নিয়ে কী করা হয়েছে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই একটি RTI ফাইল করা হয়েছিল। সেই RTI-এর জবাব অনুযায়ী, পুরনো নোটগুলিকে কোনওভাবেই নতুন করে চালানোর চেষ্ট করা হয়নি। বরং বাতিল হয়ে যাওয়া নোটগুলির কাগজ দিয়ে বর্তমানে অন্যান্য নানা সামগ্রী প্রস্তুত করা হয়। অর্থাৎ বাতিল নোটের কাগজ এবং অন্যান্য জিনিস তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

এই বাতিল নোটগুলির ক্ষেত্রে RBI এর নির্ধারিত নির্দেশিকা মেনে চলা হয়েছে। এই নোটগুলিকে প্রথমে আলাদা আলাদা ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করার পর সেগুলিকে কারেন্সি ভেরিফিকেশন প্রসেসিং সিস্টেমের মাধ্যমে বিগঠন করা হয়েছে। অর্থাৎ কোনওভাবেই এই নোটগুলিকে পুনর্ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয়নি RBI। যে সকল নোটকে RBI নতুন করে ব্যবহার করে, সেগুলিকে রিসাইকেল করা হয়। কিন্তু যে নোটগুলি একেবারেই পুনর্ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেয় না RBI, সেগুলিকে নষ্ট করে দেওয়া হয় বা অন্যান্য সামগ্রী তৈরির কাজে লাগানো হয়। এক্ষেত্রেও সেই সিদ্ধান্তই নেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ পুরনো নোটগুলি কোনওভাবেই আর বাজার চলতি নয়।

উল্লেখ্য, বর্তমানে পুরনো ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোটের বদলে বাজারে এসেছে নতুন ৫০০ ও ২০০০-এর নোট। একইসঙ্গে নতুন ১০, ৫০, ১০০ ও ২০০ টাকার নোটও এসেছে বাজারে। পুরনো নোটগুলির বদলে এখন নতুন নোটই দেশের সর্বত্র প্রযোজ্য।