শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২

রাতারাতি দ্বিগুণ ট্রেনের ভাড়া! দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন যাত্রীরা, কারণ ব্যাখ্যা করল রেল

১১:৪৯ এএম, নভেম্বর ২, ২০২১

রাতারাতি দ্বিগুণ ট্রেনের ভাড়া! দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন যাত্রীরা, কারণ ব্যাখ্যা করল রেল

ফের গড়াল লোকাল ট্রেনের চাকা। যাত্রী সুবিধার্থে গত রবিবার, ৩১ অক্টোবর থেকে ফের চালু হয়েছে লোকাল ট্রেন। ফের দীর্ঘদিন পর একসঙ্গে এতগুলি ট্রেন চালু হতেই সিগন্যালিং সিস্টেমে দেখা দেয় সমস্যা৷ ফলে এদিন নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছুটা দেরিতে চলে ট্রেন৷ এসবের মাঝেই ট্রেন নিয়ে ফের ক্ষোভ উগড়ে দিলেন যাত্রীরা৷ কারণ, ট্রেনের বর্ধিত ভাড়া। যাত্রীদের অভিযোগ, কোনও নোটিশ ছাড়াই বেড়েছে ভাড়া৷ যদিও পরে রেল কর্তৃপক্ষের তরফে কারণ ব্যাখ্যা করা হয়৷

যাত্রীদের অভিযোগ, সোমবার সকালেই লালগোলা প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ভাড়া বেড়ে দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। একই দৃশ্য দেখা যায় বর্ধমান রুটেও। আগে বর্ধমান থেকে অন্ডালের ভাড়া ছিল ২০ টাকা। বর্তমানে ৪৫ টাকা দিয়ে যেতে হচ্ছে যাত্রীদের। পাশাপাশি বর্ধমান-বোলপুর লাইনেও ভাড়া বাড়ানো হয়েছে বলে অভিযোগ। লোকাল ট্রেনে বর্ধমান থেকে বোলপুর যেতে আগে ২০ টাকা লাগলেও এখন সেখানে ৪৫ টাকা দিয়ে টিকিট নিতে হচ্ছে। আচমকা এই ভাড়া বৃদ্ধির ফলে বেশ সমস্যায় পড়েন বর্ধমান- আসানসোল ও বর্ধমান বোলপুর রুটের রেলযাত্রীরা।

স্বাভাবিকভাবেই তা নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন নিত্য যাত্রীরা৷ ভাড়া বৃদ্ধির খবর আগাম না জানায় অনেকেই প্রস্তুত ছিলেন না। ফলে সমস্যায় পড়েন তাঁরা। শিয়ালদহ ডিভিশনে ভাড়া বাড়ার প্রতিবাদে ব্যারাকপুর স্টেশন থেকে শিয়ালদহ যাওয়ার পথে ট্রেনের মধ্যেই ক্ষোভ উগরে দেন যাত্রীরা। আগে থেকে কোনও নোটিস না দিয়েই কেন বাড়তি ভাড়া নিচ্ছে রেল, তা নিয়ে সরব হন লালগোলা প্যাসেঞ্জারের যাত্রীরা। কেউ কেউ অভিযোগ তোলেন, প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ভাড়ার বদলে এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া নিচ্ছে রেল৷ সব মিলিয়ে বেশ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়।

[caption id="attachment_38210" align="alignnone" width="1224"]রাতারাতি দ্বিগুণ ট্রেনের ভাড়া! দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন যাত্রীরা, কারণ ব্যাখ্যা করল রেল / প্রতীকী ছবি রাতারাতি দ্বিগুণ ট্রেনের ভাড়া! দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন যাত্রীরা, কারণ ব্যাখ্যা করল রেল / প্রতীকী ছবি [/caption]

এবার প্রশ্ন উঠছে, কেন আচমকা বাড়ল ভাড়া? এই প্রসঙ্গে বর্ধমান স্টেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক স্বপন অধিকারী জানিয়েছেন, বর্ধমান-হাওড়া কিংবা বর্ধমান-কাটোয়া রুটে যে সব মেমু ট্রেন চলে বা যে ট্রেনগুলি কনভেনশনাল রেক দিয়ে চলে, সেগুলোর ভাড়া বৃদ্ধি হয়েছে। সেই ট্রেনগুলিতে ধার্য করা হয়েছে এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া। এছাড়াও বেশ কিছু রুটের ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে৷ তবে এই নিয়ম নতুন নয়৷ রেলের আরেক আধিকারিক জানিয়েছেন, গত মার্চ মাসেই এই ভাড়া বৃদ্ধির নিয়ম কার্যকর হয়। অন্যান্য রাজ্যে তা আগেই কার্যকর হলেও এ রাজ্যে এতদিন কেবলমাত্র স্পেশাল ট্রেন চলায় এই নিয়ম লাগু হয়নি। তবে লোকাল ট্রেনের চাকা ফের স্বাভাবিকভাবে গড়াতেই ভাড়া বৃদ্ধির নিয়মও লাগু হল।

রেল আধিকারিক আরও জানান, দূরপাল্লার ট্রেনগুলিতে করোনাবিধি বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যাচ্ছিল না। সেই কারণে গত মার্চেই প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ক্ষেত্রেও মেল এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া নেওয়ার কথা ঘোষণা করে রেল। রেলের অন্যান্য শাখায় অনেক আগেই এই নিয়ম কার্যকর হয়েছিল। কিন্তু সেই সময় এই রাজ্যে সমস্ত লোকাল এবং প্যাসেঞ্জার ট্রেন স্টাফ স্পেশাল হিসেবে চালানো হচ্ছিল। ফলে সেই নিয়ম কার্যকর করা যায়নি। তবে রাজ্যের নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী লোকাল ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হতেই নিয়মানুসারে কিছু প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে।