‘যা কোনওদিন করিনি সেটাই করতে চাই’! নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন রবি শাস্ত্রী

'যা কোনওদিন করিনি সেটাই করতে চাই’! নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন রবি শাস্ত্রী
'যা কোনওদিন করিনি সেটাই করতে চাই’! নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন রবি শাস্ত্রী

কথা ছিল, টি-২০ বিশ্বকাপ শেষেই ভারতীয় দলের কোচ হিসেবে মেয়াদ শেষ হবে রবি শাস্ত্রীর৷ আর সেই কথা মতোই, ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান শেষের পর দলের দায়িত্বভার ছাড়লেন শাস্ত্রী। এরপরই তাঁকে নিয়ে শুরু হয়েছে নয়া জল্পনা৷ শাস্ত্রীর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী? এবার কি তিনি কমেন্ট্রিতেই ফিরে যাবেন নাকি অন্য কোথাও কোচিংয়ের কথা ভাবছেন? ইত্যাদি নানা প্রশ্ন ঘুরে বেড়াচ্ছে আশেপাশে। সেই বিষয়েই অবশেষে মুখ খুললেন শাস্ত্রী।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে রবি শাস্ত্রী জানালেন, তাঁর কাছে সুযোগ এলে তিনি আইপিএলের কোচিং করাতে ইচ্ছুক। তাঁর কথায়, “আমি যদি সুযোগ পাই, তাহলে নিশ্চয়ই করব। কোনও বিকল্প নেই। এটা খুবই ভালো অভিজ্ঞতা হবে। এমন একটা বিষয় যা আমি কোনওদিন চেষ্টা করিনি। যার স্বাদ নিইনি। আমি অবশ্যই তা করব।” উল্লেখ্য, এর আগে একটি রিপোর্টে প্রকাশিত হয়েছিল যে আসন্ন আইপিএলে আহমেদাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজির কোচ হতে পারেন রবি। ইতিমধ্যে নাকি দুপক্ষের কথাও হয়ে গিয়েছে। যদিও সরকারিভাবে এখনও কিছুই জানানো হয়নি।

শাস্ত্রী অবশ্য মিডিয়ার অংশও হতে ইচ্ছুক৷ তাঁর মতে, যেভাবে মিডিয়া বাড়ছে তা আকর্ষণীয়। এমনকি ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর দীর্ঘ ২৩ বছর তিনি ব্রডকাস্টিংয়ের সঙ্গেই যুক্ত ছিলেন। রবির কথায়, “খেলা ছাড়ার পর আমি ব্রডকাস্টিংয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। দিনে দিনে সেই জায়গাটা মারাত্মকভাবে বেড়েছে। হাতের পাঁচটা আঙুল কখনও ফিট হয় না, দশটা আঙুল লাগে। কিন্তু আমি পাঁচটা আঙুলের জন্যই ঠিক আছি। এগুলো সবই ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত, আমি আজ যেখানে দাঁড়িয়ে সেটা ক্রিকেটের জন্যই। কিন্তু মিডিয়া জগৎটা বাড়ছে। আমার মনে হয় সেটা আমার আদর্শ জায়গা।”

প্রসঙ্গত, শাস্ত্রী মোট দু’বার জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁর কোচিংয়ে ভারত কোনও আইসিসি ট্রফি জিততে না পারলেও ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে গেছে দল। বিশ্ব টেস্ট চ্য়াম্পিয়নশিপের ফাইনালও খেলেছে। এছাড়াও শাস্ত্রীর কোচিংয়েই টেস্টে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডকে তাদের ঘরের মাঠেই পরাস্ত করেছে ভারতীয় দল। এবার তাঁর জায়গায় দলকে সামলানোর দায়িত্বভার উঠেছে আরেক ক্রিকেট কিংবদন্তি রাহুল দ্রাবিড়ের হাতে। দ্রাবিড় জানিয়েছেন, শাস্ত্রী দলকে যেখানে ছেড়ে গিয়েছেন সেখান থেকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই তাঁর লক্ষ্য।