করোনা দূর করতে আয়ুর্বেদিক ওষুধ! কার্যকারিতা যাচাই করতে ICMR-এ পরীক্ষার সিদ্ধান্ত অন্ধ্র সরকারের

করোনা দূর করতে আয়ুর্বেদিক ওষুধ! কার্যকারিতা যাচাই করতে ICMR-এ পরীক্ষার সিদ্ধান্ত অন্ধ্র সরকারের
করোনা দূর করতে আয়ুর্বেদিক ওষুধ! কার্যকারিতা যাচাই করতে ICMR-এ পরীক্ষার সিদ্ধান্ত অন্ধ্র সরকারের

‘মিরাকল নিরামক’ অথবা Miracle Cure! করোনা নিরাময়ের আয়ুর্বেদিক ওষুধ! বর্তমানে দেশের করোনা পরিস্থিতি সামলাতে যখন হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা, যখন সারা দেশ জুড়ে দেখা দিয়েছে টিকার ঘাটতি; ঠিক সে সময়ই অন্ধ্রপ্রদেশের গ্রামে বিতরণ করা হচ্ছে করোনা থেকে মুক্তি পাওয়ার ওষুধ। সম্প্রতি এই ওষুধের কার্যকারিতা পরখ করতে ICMR-এ পরীক্ষার নির্দেশও দিল অন্ধ্রের সরকার।

গত শুক্রবার ওষুধটির যথার্থতা বিশদে পরীক্ষা করতে তা ICMR-এ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগন মোহন রেড্ডি। উল্লেখ্য, অন্ধ্রপ্রদেশের নেল্লোর জেলার কৃষ্ণাপটনম নামক গ্রামে করোনা ভাইরাসের থেকে নিরাময় পেতে আয়ুর্বেদ ওষুধ বিতরণ করছিলেন এক আয়ুর্বেদ চিকিৎসক। তা নিতে চিকিৎসকের বাড়ির বাইরে লাইন করে ভীড়ও জমিয়েছেন গ্রামবাসীরা। পাশাপাশি ক্ষমতাসীন YSRCP বিধায়ক কে গোবর্ধন রেড্ডিও শহর জুড়ে সক্রিয় ভাবে এই আয়ুর্বেদ ওষুধের প্রচার করেছেন।

তাঁর মতে, “এটি কোভিডের জন্য একটি ‘অলৌকিক নিরামক’। বোনিজি আনন্দাইয়া নামে একজন প্রখ্যাত আয়ুর্বেদ চিকিৎসক কোভিড নিরাময়ের জন্য পাঁচটি ওষধি সংমিশ্রণ খুঁজে পেয়েছেন। বেশ কয়েকজন কোভিড রোগী এই আয়ুর্বেদ ওষুধ নিয়েছেন। তাঁদের শারীরিক অবস্থার যথেষ্ট উন্নতিও হয়েছে। চিকিৎসকের ওষুধ কাজ করছে। এ কারণেই কৃষ্ণাপটনমে তাঁর বাড়ির বাইরে এত লোকের ভীড় বাড়ছে।” এরপরই ওষুধটিকে বৈজ্ঞানিক পরীক্ষার জন্য পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তবে এই ওষুধ নিতে গিয়ে কোভিড বিধি শিঁকেয় তুলেছেন গ্রামবাসীরা। প্রাক্তন স্বাস্থ্য সচিব পি ভি রমেশ সহ স্বাস্থ্য বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা এবং প্রাক্তন IAS অফিসাররা একে ‘কোভিড বিপর্যয় তৈরির কৌশল’ও বলেন। যদিও এই বিষয়ে রেড্ডি জানিয়েছেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা চালাচ্ছেন সুরক্ষা কর্মীরা। তবে চিকিৎসক বিশেষজ্ঞরা তাঁদের রিপোর্ট জমা না দেওয়া পর্যন্ত এই ওষুধের আর প্রচার করা বা বিজ্ঞাপন দেওয়ার ব্যাপারে নিষেধ করা হয়েছে বিধায়ক কে গোবর্ধন রেড্ডিকে।