অসাধারণ প্রতিভা! অটোর ওপর দাঁড়িয়ে গোটা বাড়ি! আর্কিটেক্টের দক্ষতায় মুগ্ধ শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রাও

অসাধারণ প্রতিভা! অটোর ওপর দাঁড়িয়ে গোটা বাড়ি! আর্কিটেক্টের দক্ষতায় মুগ্ধ শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রাও
অসাধারণ প্রতিভা! অটোর ওপর দাঁড়িয়ে গোটা বাড়ি! আর্কিটেক্টের দক্ষতায় মুগ্ধ শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রাও / ছবি সৌজন্যে- Tweeted By @WeekendInvestng

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ এক কথায় অসাধারণ প্রতিভা। যাতে মুগ্ধ না হয়ে উপায় নেই। সঙ্গে কল্পনাশক্তিও তারিফযোগ্য। তরুণ এক আর্কিটেক্ট আস্ত একটা অটো রিকশার উপর বানিয়ে ফেলেছেন বাড়ি।

এমন এক বাড়ি নির্মাণ করেছেন, চাইলেই তা চালিয়ে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন সঙ্গে করে। বাড়ি সমেতই যেকোনো জায়গায় ঘুরে নেওয়া যেতে পারে। বিদেশে এই ধরনের গাড়ি আগেও দেখা গেছে। যেখানে গাড়ির মধ্যে গোটা বাড়ি তৈরি করে নেওয়া হয়। যেখানে থাকে প্রয়োজনের সব জিনিস এবং ব্যবস্থা। আর সেই গাড়ি-বাড়ি নিয়েই যাযাবরের মতো এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় ঘুরে বেড়ান বাড়ি মালিক। তবে, তা আকারে খুবই ছোট হয়। এবার চেন্নাইয়ের এক ব্যক্তি যা করলেন, তা সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। শুধু সাধারণ মানুষই নন, মুগ্ধ হয়েছেন শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রাও।

জানা গিয়েছে, চেন্নাইয়ের আর্কিটেক্ট অরুণ প্রভু এনজি এই অসাধ্য সাধন করেছেন। এক লক্ষ টাকার মধ্যেই অটোর মধ্যে এই বাড়ি নির্মাণ করেছেন অরুণ। বাড়ির নাম দিয়েছেন ‘সোলো ১’। কোনও জমি বা জায়গার প্রয়োজন নেই। প্রয়োজন পড়েনি ইট, বালি, সিমেন্টেরও। তা সত্ত্বেও কি নেই এই বাড়িতে, আকারে ছোট হলেও, স্বচ্ছন্দে থাকা যাবে এই বাড়িতে। বেডরুম, বাথরুম থেকে ব্যলকনি সব রয়েছে। আবার ছাদে বসে হাওয়া খাওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে। আরও আছে, অটোর পিছনের অংশে তৈরি করা হয়েছে এই বাড়ি। হলুদ রঙের এই বাড়ির ছাদে রয়েছে একটি আরামকেদারা, যেমনটা থাকে সমুদ্রের বিচে। রোদ আটকানোর জন্য রয়েছে একটি বড় ছাতা। এছাড়াও রয়েছে থাকার সুবন্দোবস্ত। দোতলা বাড়ির বাইরে আবার কাপড়-জামা মেলার জায়গাও রয়েছে। রয়েছে কাচের জানলা এবং সৌরশক্তিকে কাজে লাগানোর জন্য সোলার প্যানেলও। এগজস্টেরও ব্যবস্থাও আছে। মানে কোনও কিছুরই অভাব নেই। এক কথায় অসাধারণ এক প্রচেষ্টা।

এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হওয়ার পর, তা চোখে পড়ে যায় শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রার। তিনিও সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই গাড়ি-বাড়ির ছবি পোস্ট করেছেন। শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রা মাঝে মধ্যেই সারা দেশের ক্রিয়েটিভ মানুষদের খুঁজে বার করেন, তাঁদের সৃষ্টিকে তুলে ধরেন সকলের সামনে এবং প্রশংসাও করেন। নিজের কোম্পানিতে এভাবে অনেককে খুঁজে চাকরিও দিয়েছেন তিনি। এবার এই অটো রিকাশার উপর নির্মিত বাড়ির ছবিও শেয়ার করে তিনি বলেছেন, ‘অসাধারণ এই বাড়ি এবং বুদ্ধি। করোনাকালে এমন ভ্রাম্যমান বাড়িই তো দরকার।’

তিনি ট্যুইটারে আবেদন করেছেন, তাঁর সঙ্গে যদি কেউ চেন্নাইয়ের অরুণের আলাপ করিয়ে দিতে পারে, তবে খুব ভালো হয়। ভবিষ্যতে এই ভাবনাকে আগে নিয়ে যেতে চান মাহিন্দ্রা। এই অটো রিকশা বাড়ি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। বহু মানুষ প্রশংসায় ভরিয়েছেন তরুণ আর্কিটেক্ট অরুণ প্রভু এনজিকে।

শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রার ট্যুইটও ভাইরাল ইতিমধ্যেই। ৫ হাজারের বেশি লাইক পড়েছে। উল্লেখ্য, এর আগে একটি ৬ ফুট বাই ৬ ফুটের বাড়ি বানিয়েছিলেন অরুণ। তাঁর কথায়, এই ভাবনা এবং একটু উন্নত ডিজাইন দিয়ে বস্তি এলাকার পরিবেশ উন্নত করা সম্ভব। ভারতে পোর্টেবল এবং টেম্পোরারি হাউসিংয়ের ধারণা প্রবর্তন করতেই, ছোট জায়গায় উন্নত আর্কিটেকচারের সাহায্যে বাড়ি নির্মাণ করেন অরুণ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.