মমতাই অনুপ্রেরণা, দুয়ারে রেশন চালু করতে মোদীকে আর্জি কেজরিওয়ালের

মমতাই অনুপ্রেরণা, দুয়ারে রেশন চালু করতে মোদীকে আর্জি কেজরিওয়ালের
মমতাই অনুপ্রেরণা, দুয়ারে রেশন চালু করতে মোদীকে আর্জি কেজরিওয়ালের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম হল দুয়ারে রেশন প্রকল্প। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুয়ারে রেশন প্রকল্পের অনুকরণে রাজধানী দিল্লিতে জনতার ঘরে ঘরে রেশন পৌঁছে দিতে আগ্রহী, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালও। তাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে আরও একবার এই প্রকল্প চালু করার বিষয়ে চিঠি লিখে আর্জি জানালেন কেজরিওয়াল।

প্রধানমন্ত্রীকে মঙ্গলবার চিঠিতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল লিখেছেন, কেন্দ্র যদি চায়, তাহলে রেশন পৌঁছে দেওয়ার নিয়ম বদলাতেও দিল্লি সরকার তৈরি। উল্লেখ্য, করোনাকালে পশ্চিমবঙ্গে বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেওয়ার উদাহরণ তৈরি করেছে রাজ্য সরকার। আর এই পদ্ধতিতে রেশন দেওয়া নিয়েই কেন্দ্রের সঙ্গে দিল্লির কেজরিওয়ালের সরকারের দ্বন্দ্ব বেঁধেছে। দিল্লি সরকারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছে, কেন্দ্র সরকারের অনুমতি নিয়েই বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এই মর্মে চিঠিও পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এই কাজ শুরু হওয়ার ঠিক দু’দিন আগে, কেন্দ্র সরকার এই প্রকল্পকে বাতিল করে দেয়।

সেই সময়, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী জানান যে, আইনিভাবে অনুমতি নেওয়ার কোনও প্রয়োজন ছিল না। নিছক সৌজন্যের খাতিরে, তাঁরা মোদী সরকারের অনুমতি নিয়েছিলেন। মানুষের দুয়ারে রেশন পৌঁছে দিতে, মরিয়া অরবিন্দ কেজরিওয়ালের যুক্তি ছিল, ঘরে বসে যদি পিৎজা, বার্গার, জামাকাপড় পৌঁছে দেওয়া যায়, তাহলে রেশন কেন নয়। তিনি আরও জানিয়েছেন, প্রথমবার কোনও সরকার রেশন মাফিয়াদের বিরুদ্ধে তদন্ত করার উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু প্রকল্পটি চালু হবার আগেই বাতিল করে দিল কেন্দ্র সরকার।

৬ জুন, প্রধানমন্ত্রীকে লেখা আগের চিঠিতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছিলেন, ‘আমাদের প্রস্তুতি নেওয়া হয়ে গিয়েছিল। দিল্লির গরীব মানুষ বিনামূল্যে রেশন পেতেন সামনের সপ্তাহ থেকে। কিন্তু সেই প্রকল্প বন্ধ করে দিল কেন্দ্র সরকার।’ এ ব্যাপারে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর যুক্তি, করোনা আবহে ঘরে ঘরে রেশন পৌঁছে না দিলে, রেশন দোকানগুলি করোনার সুপার স্প্রেডার হয়ে উঠতে পারে।

এদিকে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ অস্বীকার করে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, দিল্লি সরকারের প্রস্তাব নাকচ করে দেওয়া হয়নি বরং জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা আইন অনুযায়ী সরবরাহের পদ্ধতি বদলাতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি বলা হয়েছে, এই আইনে সরকারের অনুমতি নিতে। আর এখন দিল্লির কেজরিওয়াল সরকার তাঁদের সুর পাল্টে বলছে, কেন্দ্রের কথা মত সমস্ত ব্যবস্থা নিতেই তৈরি, যদি কেন্দ্র দুয়ারের রেশন প্রকল্প চালু করার অনুমতি দেয়।