অতিরিক্ত কাজের চাপে মেজাজ হারিয়ে ডাক্তারকে চড় নার্সের! ডাক্তারও মারলেন পাল্টা ঘুষি! দেখুন ভিডিও

অতিরিক্ত কাজের চাপে মেজাজ হারিয়ে ডাক্তারকে চড় নার্সের! ডাক্তারও মারলেন পাল্টা ঘুষি! দেখুন ভিডিও
অতিরিক্ত কাজের চাপে মেজাজ হারিয়ে ডাক্তারকে চড় নার্সের! ডাক্তারও মারলেন পাল্টা ঘুষি! দেখুন ভিডিও

দিনের পর দিন চড়ছে করোনার গ্রাফ। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের হারও। তবে দেশের এই কঠিন পরিস্থিতিতেও কিন্তু নিজেদের কাজ বন্ধ রাখেননি কোভিড-যোদ্ধারা। নিজেদের কাজ নিষ্ঠা ভরে ঠান্ডা মাথায় সামলে যাচ্ছেন তাঁরা। বিশেষ করে চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীদের এখন বিন্দুমাত্রও সময় নেই অন্য কোনও দিকে তাকাবার। নিজেদের শত অসুবিধাকে তুচ্ছ করেই মানুষের সেবায় প্রতিনিয়ত অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন তাঁরা। চালিয়ে যাচ্ছেন লড়াই।

কিন্তু দিনের শেষে তো তাঁরাও মানুষ। রাগ, দুঃখ, অবসাদ সবই এসে গ্রাস করে তাঁদেরও। মেজাজও হারিয়ে ফেলেন তাঁরা। আর মেজাজ হারিয়ে এমন সব কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেন, যা দেখে চোখ কপালে ওঠে বাকি সবার। সম্প্রতি এরকমই এক ঘটনার সাক্ষী রইল উত্তরপ্রদেশের রামপুর জেলার সদর হাসপাতাল। যেখানে অতিরিক্ত কাজের চাপে মেজাজ হারিয়ে ডাক্তারের গালেই চড় বসিয়ে দিলেন এক নার্স। ডাক্তারও কম যান না। নার্সকে পাল্টা ঘুষি চালান তিনিও। কিন্তু হঠাৎ এমন ঘটনা ঘটলই বা কেন?

জানা গিয়েছে, ওই হাসপাতালে এক করোনা রোগীর মৃত্যুর পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে গিয়েছিলেন এক নার্স। উদ্দেশ্য ছিল মৃত রোগীটির মৃত্যুর শংসাপত্র আনা। এ জন্য ডাক্তারকে অনুরোধও করেন ওই নার্স। কিন্তু সেসময় কাজে মধ্যে ব্যস্ত থাকায় বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চান ওই চিকিৎসক। এরপরই ডাক্তারের সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েন ওই নার্স। ধৈর্য্য হারিয়ে সপাটে চড় কষিয়ে দেন চিকিৎসকের গালে। রাগে চিকিৎসকও পাল্টা ঘুষি চালান।

ঘটনাটি নিয়ে ইতিমধ্যেই জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রামজি মিশ্র তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। যদিও রামপুর পুলিশ জানিয়েছে এখনও অবধি কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। তবে তদন্ত জারি থাকবে। ডাক্তার এবং নার্স দুজনের সঙ্গে কথা বলেই সিদ্ধান্তে আসা হবে বলেই জানানো হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.