মালদায় গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা! পলাতক অভিযুক্ত যুবক

মালদায় গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা! পলাতক অভিযুক্ত যুবক
মালদায় গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা! পলাতক অভিযুক্ত যুবক / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মালদাঃ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইংরেজবাজার থানার নরহাট্টার জোতবসন্ত গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। ওই গৃহবধূর অভিযোগ, অভিজিৎ চৌধুরী নামে স্থানীয় এক যুবক মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এক নির্জন আমবাগানে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তার চিৎকারে গ্রামের লোকজন জড়ো হয়ে যাওয়ায় পালিয়ে যায় ওই যুবক। এরপর ঘটনাটি পরিবারের লোকজনকে জানালে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই গৃহবধূ সহ পরিবারের লোকজন।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে ওই গৃহবধূর স্বামী ভিন রাজ্যে কাজ করেন। বাড়িতে রয়েছে তার পাঁচ মাসের একটি শিশু সন্তান, শ্বশুর, শাশুড়ি এবং দেওর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পাঁচ মাসের সন্তানকে নিয়ে বাড়িতে একাই ছিলেন ওই গৃহবধূ। সেই সময় অভিযুক্ত যুবক অভিজিৎ চৌধুরী তার বাড়িতে এসে গৃহবধূর দেওর কোথায় আছেন তা জানতে চান। বাড়িতে কেউ নেই শুনে ওই গৃহবধূর মুখে কাপড় চাপা দিয়ে ওই যুবক প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে একটি নির্জন আম বাগানে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। সেখানে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে কোনক্রমে নিজেকে ছাড়িয়ে পালিয়ে আসেন ওই গৃহবধূ। তার চিৎকার চেঁচামেচিতে লোকজন জড়ো হলে অভিযুক্ত যুবক পালিয়ে যায়। ঘটনাটি জানাজানি হতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জোতবসন্ত গ্রামে।

এরপর ইংরেজবাজার থানায় ওই যুবকের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেন গৃহবধূর পরিবারের লোকেরা। ওই গৃহবধূ জানান, দীর্ঘদিন ধরে ওই যুবকের কুনজর ছিল তাঁর উপরে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়িতে এসে দেওরের খোঁজ করতে থাকে ওই যুবক। বাড়িতে কেউ নেই শুনে হঠাৎ করেই গৃহবধূর মুখে কাপড় চাপা দিয়ে তুলে নিয়ে যায় আমবাগানে। সেখানে তার হাত থেকে কোনরকমে নিজের প্রাণ বাঁচিয়ে পালিয়ে আসে সে। এছাড়া তিনি বলেন ওই যুবকের উপযুক্ত শাস্তি হোক। অন্যদিকে ওই যুবকের শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন এলাকার বাসিন্দারাও। অন্যদিকে গৃহবধূকে চেকআপের জন্য নিয়ে যাওয়া হয় মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.