এবার বাবা রামদেবের সংস্থা ‘পতঞ্জলি’ নিয়ে এল করোনা সারানোর দাওয়াই!

এবার বাবা রামদেবের সংস্থা ‘পতঞ্জলি’ নিয়ে এল করোনা সারানোর দাওয়াই!
এবার বাবা রামদেবের সংস্থা ‘পতঞ্জলি’ নিয়ে এল করোনা সারানোর দাওয়াই! / ছবি সৌজন্যে- Screengrab from Facebook Video Posted By @swami.ramdev

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশে এখন করোনা সংক্রমণের হার আগের তুলনায় অনেকটাই কম। করোনা মহামারী পরিস্থিতি থেকে মুক্তির পথে বেশ অনেকটা পথ এগিয়ে এসেছে ভারত। পাশাপাশি দেশজুড়ে চলছে করোনার টিকাকরণ প্রক্রিয়া। ভারত প্রতিবেশী এবং বেশ কিছু বন্ধু রাষ্ট্রেও পাঠিয়েছে করোনার প্রতিষেধক।

এই আবহে এবার বাবা রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি নিয়ে এল করোনা সারানোর নয়া ওষুধ। শুক্রবার এক সাংবাদিক অনুষ্ঠানে এই নতুন ওষুধ করোনিল ট্যাবলেট-এর আত্মপ্রকাশ ঘটল। রামদেবের দাবি, এই নয়া করোনার ওষুধ সারিয়ে দেবে করোনা। এদিনের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন এবং পরিবহণমন্ত্রী নীতীন গড়করি।

উল্লেখ্য, গত বছরের জুন মাসে করোনিল এবং শ্বাসরি নামের দুই করোনার ওষুধ বাজারে এনেছিল পতঞ্জলি। প্রথম থেকেই এই সংস্থার দাবি ছিল যে, তাঁদের এই ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হয়েছে করোনা আক্রান্ত রোগীদের উপর। আর সেই ট্রায়াল ১০০ শতাংশ সফলও। কিন্তু আয়ুস মন্ত্রক জানিয়ে ছিল যে, এই ওষুধগুলি সম্পর্কে তাদের কিছুই জানানো হয়নি। তাই এর কোনও বিজ্ঞাপন করতে পারবে না রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি।

অন্যদিকে সংস্থার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল যে, সাত দিনের মধ্যেই নাকি ওই ওষুধ করোনা সারিয়ে দেবে। আর এই দাবিকে ঘিরেও বিতর্ক সৃষ্টি হয়। এদিনের অনুষ্ঠানেও সেই প্রসঙ্গ উঠে আসে রামদেবের মুখে।

রামদেবের কথায়, যখন তাঁরা করোনিলের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবনদান করার কাজ করছিলেন, তখন অনেকেই এই ওষুধ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তিনি বলেন যে, কিছু মানুষ বিশ্বাস করেন যে, গবেষণা কেবল বিদেশেই হয়। আর আয়ুর্বেদের গবেষণা নিয়ে অনেকের মনেই সন্দেহ আছে। তবে সেই সন্দেহ এখন কেটে গেছে। নতুন ওষুধেরও নাম রাখা হয়েছে করোনিল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রামদেবের ওষুধের বিজ্ঞাপনের উপর প্রথমে আয়ুষ মন্ত্রক নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও, তা বিক্রিতে কোনও বাধা ছিল না। আর এবার তো তা নতুন করে লঞ্চ করে, যোগগুরু বাবা রামদেবের সৃষ্টিকেই মান্যতা দিল আয়ুষ মন্ত্রক। এদিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের কথায় তার ইঙ্গিত মেলে। রামদেবের দাবিকে পূর্ণ সমর্থন জানান হর্ষ বর্ধন। তিনি বলেন যে, আয়ুর্বেদের বিশ্বাসযোগ্যতা ও বাবা রামদেবের উপরে কখনওই সন্দেহ প্রকাশ করা উচিত নয়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.