‘কান টানলে তো মাথা আসারই কথা’, অভিষেক -পত্নীকে সিবিআই নোটিশ প্রসঙ্গে বাবুল

'কান টানলে তো মাথা আসারই কথা', অভিষেক -পত্নীকে সিবিআই নোটিশ প্রসঙ্গে বাবুল
Image source: file image

কয়লাপাচার কাণ্ডের তদন্তে রবিবার তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআই-এর নোটিশ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এদিন তিনি বলেন, “বেআইনি কয়লা পাচার কাণ্ডে ইতিমধ্যে বেশ কিছু ‘কান’ ধরপাকড় করা হয়েছে। আর কান টানলে তো মাথা আসারই কথা। কাজেই সঠিক মাথার কাছেই সিবিআই পৌঁছেছে। এখন দেখা যাক, সেটা টানলে আরও কি বেরিয়ে পড়ে!”

কেন্দ্রীয় পরিবেশ প্রতিমন্ত্রীর আরও বলেন, “এ ব্যাপারে কুণাল ঘোষের সব কথা মনে পড়ছে। উনি চিত্‍কার করে করে কারও কথা বলতেন। তখন প্রিজন ভ্যান পিটিয়ে তার কথা চাপা দেওয়া হত। দেখা যাক, কেঁচো খুড়তে খুড়তে কী বেরিয়ে পড়ে!” তিনি দাবি করেন, “সিবিআই যখন কোনও বিষয়ে যখন তদন্ত করে তার পিছনে অনেক তথ্য থাকে। তা আদালতে পেশ করে। সেই অনুযায়ী তদন্ত এগোয়। সে ব্যাপারে আমি কিছু বলব না।” তবে এটা নিশ্চয়ই বলব, কয়লা, বালির টাকা তোলার কে ক্যাপ্টেন্সি করেন তা সবাই জানে। শুধু বিজেপি নয়, সমস্ত বিরোধী দলই সে কথা বলছে।

প্রসঙ্গত, রবিবাসরীয় দুপুরে আচমকাই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে পৌঁছে যান কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এজেন্সি তথা সিবিআইয়ের গোয়েন্দারা। সিবিআই সূত্রে দাবি করা হয়, বেআইনি কয়লা পাচার কাণ্ডে আর্থিক লেনদেনের জড়িত থাকার ব্যাপারে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা নারুলা সম্পর্কে কিছু তথ্য তাঁরা পেয়েছেন। সেই সূত্রেই তাঁরা জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান রুজিরাকে। সেই খবর জানাজানি হতেই বিরোধী শিবিরে সবার আগে মুখ খুলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। এর আগে কয়লা, বালি পাচার নিয়ে বাবুল বেশ কয়েকবার মুখ খুলেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে গুচ্ছ মানহানির মামলাও করে রেখেছেন অভিষেক।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.