ঘরোয়া ক্রিকেটারদের জন্য সুখবর! এক লাফে এত টাকা বেতন বাড়াল বিসিসিআই

ঘরোয়া ক্রিকেটারদের জন্য সুখবর! এক লাফে এত টাকা বেতন বাড়াল বিসিসিআই
ঘরোয়া ক্রিকেটারদের জন্য সুখবর! এক লাফে এত টাকা বেতন বাড়াল বিসিসিআই

২১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে এই মরশুমের ঘরোয়া ক্রিকেট। তার আগেই ঘরোয়া ক্রিকেটারদের জন্য দারুণ সুখবর! এক ধাক্কায় ৫০ শতাংশ বেতন বাড়াল বিসিসিআই। এছাড়াও কোভিডের কারণে গতবছর রঞ্জি খেলা হয়নি। ২০২০-২০২১-এর ঘরোয়া মরশুম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছিল বোর্ড৷ সেই কারণে গত মরশুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে অংশ নেওয়া ক্রিকেটারদের অতিরিক্ত ৫০ শতাংশ অর্থও দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিসিসিআই সচিব জয় শাহ।

সোমবারই বিসিসিআইয়ের বৈঠকে ক্রিকেটারদের বেতন বৃদ্ধি নিয়ে এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ জানা গিয়েছে কোভিডের জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটের একাধিক খেলা বাতিলের জেরে বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েন ঘরোয়া ক্রিকেটাররা। তাঁদের আর্থিক ক্ষতি পোষানোর ব্যবস্থা করার অনুরোধে বিসিসিআইয়ের কাছে আবেদনও করা হয়। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে বিসিসিআইয়ের তরফে একটি কমিটিও গঠন করা হয়। এরপরই বৈঠক করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জানা গিয়েছে, ঘরোয়া ক্রিকেটারদের মধ্যে যে ক্রিকেটাররা ৪০-র বেশি ম্যাচ খেলেছেন তাঁদের ম্যাচ প্রতি বেতন ৬০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে৷ পাশাপাশি অনুর্ধ্ব ২৩ ও অনুর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেটারদের বেতনও অনেকটাই বেড়েছে৷ অনুর্ধ্ব ২৩ ক্রিকেটারদের ম্যাচ প্রতি ২৫ হাজার টাকা এবং অনুর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেটারদের ম্যাচ প্রাতি ২০ হাজার টাকা দেওয়া হবে৷ শুধু তাই নয়, ২০১৯-২০২০ মরশুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে অংশ নেওয়া ক্রিকেটারদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথাও জানিয়েছে বোর্ড। ২০১৯-২০ মরশুমে যে ক্রিকেটাররা ঘরোয়া ক্রিকেট মরশুমে খেলেছেন ২০২০-২১ ক্রিকেট মরশুমে টুর্নামেন্ট বাতিলের জন্য তাঁদের ম্যাচ ফি-র অতিরিক্ত ৫০ শতাংশ অর্থ ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ভারতীয় ঘরোয়া ক্রিকেটারদের রঞ্জি ম্যাচ বা বিজয় হাজারে ট্রফি খেলতে ম্যাচ প্রতি ৩৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়৷ সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির জন্য ক্রিকেটাররা প্রতি ম্যাচে ১৭, ৫০০ টাকা করে পান। যাঁরা ম্যাচ খেলতেন না, রিজার্ভে থাকতেন তাঁরা পেতেন অর্ধেক। তবে এবার ম্যাচ প্রতি বেতন ২৫ হাজার টাকা অবধি বাড়িয়ে দিল বিসিসিআই। করোনা মরশুমে ক্রিকেটারদের জন্য এ এক দারুণ স্বস্তির খবর।