কবে হবে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? খোলসা করলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি

কবে হবে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? খোলসা করলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি
কবে হবে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? খোলসা করলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি

ক্রিকেটের বাইশ গজে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আকর্ষণ আকাশছোঁয়া! এই দু’দলের মহারণ দেখতে বরাবরই ক্রিকেটপ্রেমীদের উৎসাহ তুঙ্গে। কারণ, দু’দেশের মধ্যেকার পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ না থাকায়, ICC-র কোনও ইভেন্ট ছাড়া এখন আর দেখা যায় না ভারত-পাকিস্তানের হাড্ডাহাড্ডি ম্যাচ। ফলে যখনই মুখোমুখি হয় প্রতিবেশী দুই দেশ, দর্শকদের উত্তেজনার পারদ ক্রমশ চড়তেই থাকে। একইসঙ্গে বাড়তে থাকে চাহিদাও। দু-দেশেরই ক্রীড়াপ্রেমী সমর্থকরা চান আইসিসি ইভেন্টের বাইরেও সিরিজ খেলতে মাঠে নামুক দুই দল। কিন্তু আদৌ কবে হবে ইন্দো-পাক দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? বিষয়টি এবার খোলসা করলেন স্বয়ং বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি।

৪০তম শারজা আন্তর্জাতিক বইমেলায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন সৌরভ। সেখানেই বিসিসিআই সভাপতির জবাব, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের বিষয়টি বর্তমানে বিসিসিআই (BCCI) বা পিসিবি-র (PCB) হাতে নেই। এই সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ রাষ্ট্রের। সৌরভের কথায়, “বিষয়টা এখন দুই বোর্ডের হাতে নেই। বিশ্ব মঞ্চে এই দুই দল একে-অপরের মুখোমুখি হয়। তবে বছরের পর বছর ধরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ। দুই দেশের সরকারকে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিষয়টা রামিজ (রামিজ রাজা, পিসিবি প্রধান) বা আমার হাতে নেই।”

অন্যদিকে, সম্প্রতি এসিসি-র বৈঠকে সৌরভের সঙ্গে আলোচনার পর পিসিবি প্রধান রামিজ জানান, “সৌরভ ও জয়ের সঙ্গে আমার আলাদা করে কথা হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে নতুন করে ক্রিকেট সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা চালাচ্ছি। আমি মনে করি, খেলার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক না থাকাই ভাল। এই মনোভাব নিয়েই আমরা প্রথম থেকে এগিয়েছি। তবে এটা নিয়ে সন্দেহ নেই যে, ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট সম্পর্ককে নতুন করে ঠিক করতে গেলে এখন অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে। দুই দেশের বোর্ডের মধ্যেই সমঝোতাপূর্ণ সম্পর্ক দরকার। তাতে যদিও কিছুটা সময় লাগবে।”

কবে হবে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? খোলসা করলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি
কবে হবে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ? খোলসা করলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি

২০১২ সালের পর থেকে আর বাইশ গজে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে মুখোমুখি হয়নি ইন্দো-পাক। কারণ, দুই দেশের সীমান্ত সন্ত্রাস ও রাজনৈতিক টানাপোড়েন। এমনকি বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা আইসিসিও দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের ব্যাপারে নিজে থেকে আগ্রহ দেখায়নি। আইসিসি-র অন্তর্বর্তীকালীন সিইও জিওফ অ্যালারডাইস জানিয়েছেন, “দুই দেশের মধ্যে রাজনৈতিক সম্পর্ক ও বিসিসিআই-পিসিবি’র সম্পর্ক নিয়ে আইসিসি একবারেই ভাবতে রাজি নয়। তাছাড়া দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের ক্ষেত্রে দুই দেশ ও উক্ত দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের সম্মতি প্রয়োজন। বাকিটা আমাদের হাতে নেই। তবে দুই দেশ যদি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে রাজি হয়, তাহলে আইসিসি অবশ্যই এগিয়ে আসবে।”

প্রসঙ্গত, দ্বিপাক্ষিক সিরিজ না খেললেও বিগত ৯ বছরে একাধিকবার আইসিসি ইভেন্টে মুখোমুখি হয়েছে প্রতিবেশী দেশ দুটি। সদ্য টি-২০ বিশ্বকাপেও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিজেদের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছিল ভারত। যদিও বাবর আজমের দলের কাছে হেরে যায় বিরাট বাহিনী। এবার দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ দেখার জন্য মুখিয়ে সমর্থক৷ যদিও তা কবে হবে সে বিষয়ে কারোর কাছেই নিশ্চিত জবাব নেই।