মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২

কোহলিকে নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে BCCI! জুম কলে মিটিং সৌরভ-শাহের, কী ব্যবস্থা নেবে বোর্ড?

০৭:৫২ পিএম, ডিসেম্বর ১৭, ২০২১

কোহলিকে নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে BCCI! জুম কলে মিটিং সৌরভ-শাহের, কী ব্যবস্থা নেবে বোর্ড?

গত বুধবারই প্রেস কনফারেন্সে বোমা ফাটিয়েছেন ভারতের টেস্ট অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিসিসিআই-এর বিরুদ্ধে এমন সব বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন যা নিয়ে বোর্ডের অন্দরমহলে বইছে অশান্তির চোরা স্রোত। শুধু তাই নয়, সাংবাদিক বৈঠকে সৌরভ গাঙ্গুলির মন্তব্যের বিরোধিতাও করেছেন বিরাট। সৌরভ জানিয়েছিলেন, বিরাটিকে টি-২০ দলের অধিনায়কত্ব ছাড়তে বারণ করেছিল বোর্ড৷ কিন্তু বোর্ড সভাপতির দিকে পরোক্ষ ভাবে আঙুল তুলে কোহলির দাবি, তাঁকে টি-২০-র নেতৃত্ব ছাড়তে কেউ বারণ করেননি। অর্থাৎ নাম না করেই সৌরভকে পাল্টা আক্রমণ করে বসলেন তিনি। জাতীয় দলের ক্যাপ্টেনের বোর্ড প্রেসিডেন্টের এমন প্রকাশ্য দ্বন্দ্ব আগে ঘটেনি ক্রিকেট বিশ্বে।

বিরাটের প্রেস কনফারেন্সের পরে স্বাভাবিকভাবেই ফের ছড়িয়ে পড়েছে বিতর্ক। বোর্ড না বিরাট, কে আসলে সত্য বলছে তা নিয়ে ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে উঠছে সংশয়ের ঢেউ। এদিকে কোহলি বিতর্কে এখনও মুখ খোলেনি বিসিসিআই। বিরাটের প্রেস কনফারেন্সের পর বুধবার দিনভর চুপ ছিলেন সৌরভ সহ বোর্ডের কর্তারা৷ পরে বৃহস্পতিবার সৌরভ জানিয়েছেন, “এটি খুবই স্পর্শকাতর বিষয়। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে। আমি কোনও মন্তব্য করব না। বোর্ড যা ব্যবস্থা নেওয়ার সঠিক সময়েই নেবে। বিসিসিআই পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ করবে।" কিন্তু কী ব্যবস্থা নিতে চলেছে বোর্ড?

আপাতত যেটুকু জানা যাচ্ছে, তাতে এখনই কোহলির বিরুদ্ধে কোনও কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে না বিসিসিআই। কারণ সামনেই দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ। সেখানে যাতে টিম ইন্ডিয়ার ফোকাস না নড়ে যায় তাই সেই দিকে নজর দিচ্ছেন বোর্ড কর্তারা৷ বোর্ড আপাতত ধীরে চলো নীতি নিয়েছে এই বিতর্কে। যাতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোনও প্রভাব না পড়ে। সূত্রের খবরে জানা যাচ্ছে, বুধবারই জয় শাহ, সৌরভ গাঙ্গুলি সহ বোর্ডের শীর্ষকর্তারা জুম কলে মিটিং সারেন। সেখানে ঠিক হয়েছে কোহলি বিতর্কে কেউ কোনও সাংবাদিক সম্মেলন করবে না। কোনও প্রেস রিলিজও এখন বের করা হবে না।

তবে এই মুহূর্তে কী করণীয়? মনে করা হচ্ছে হয়তো এখনই সৌরভ বা জয় শাহ বা বোর্ডের কেউ কোহলির সঙ্গে কথা বলবেন না। দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে বিরাট দেশে ফেরার পরেই হয়তো সৌরভ-জয়ের সঙ্গে মিটিং হতে পারে তাঁর। তারপরেই হয়তো সমস্যার সমাধান হতে পারে৷ তাই অদূর ভবিষ্যতে বিরাট কি আদৌ কোনও শাস্তি পেতে চলেছেন? নাকি স্রেফ আলোচনার মাধ্যমেই তাঁকে সতর্ক করে দেবেন সৌরভরা? সেদিকেই এখন নজর সারা ক্রিকেট বিশ্বের।