মুম্বইয়ে পৌঁছলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! পুজো দিলেন সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে

মুম্বইয়ে পৌঁছলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! পুজো দিলেন সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে
মুম্বইয়ে পৌঁছলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! পুজো দিলেন সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ মুম্বইয়ে শিল্পপতিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে, বিরোধী জোটের লক্ষ্যে শিবসেনা এবং শরদ পাওয়ারের সঙ্গে বৈঠক- এমনই একাধিক কর্মসূচী নিয়ে আজ মুম্বই পৌঁছেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ইতিমধ্যেই তিনি পৌঁছে গিয়েছেন মুম্বইয়ে এবং গেছেন সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে। বাণিজ্যনগরীতে পৌঁছেই সিদ্ধি বিনায়ক মন্দির পুজো দিয়েছেন তিনি। শ্রদ্ধা জানালেন মুম্বই হামলায় নিহতদেরও। পাশাপাশি উদ্ধব ঠাকরের দ্রুত আরোগ্য কামনাও করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন মন্দিরের বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নেত্রী বলেন, ‘অনেকবার মুম্বই এসেছি। সিদ্ধি বিনায়ক মন্দিরে পুজো দেওয়ার সুযোগ হয়নি। আমাদের রাজ্যেও গণেশ পুজো হয়। সবার জন্য প্রার্থনা ও আর্শীবাদ নিতে এসেছি। আমার বাড়িতেও গণপতির আরাধনা হয়, আমি এখানকার মানুষের আশীর্বাদ নিতে এসেছি। এখানে খুব ভালোভাবে আমাকে গনপতিজির দর্শন করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। তার জন্য সকলকে ধন্যবাদ’। সবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর মুখে ‘জয় বাংলা’ স্লোগানের পাশাপাশি শোনা যায়, ‘জয় মারাঠা’ স্লোগানও।

আজই সন্ধের সময় তাঁর আদিত্য ঠাকরের সঙ্গে বৈঠক রয়েছে। পাশাপাশি আগামীকাল বৈঠক রয়েছে NCP প্রধান শরদ পাওয়ারের সঙ্গেও। শিল্পের বার্তা নিয়ে মুম্বইয়ে পা রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন মুম্বই যাওয়ার আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে, মুম্বইয়ে কয়েকজন শিল্পপতির সঙ্গে তাঁর বৈঠক রয়েছে। আগামী বছর অনুষ্ঠিত হতে চলা বিশ্ব বাংলা বাণিজ্য সম্মেলনে শিল্পপতিদের আমন্ত্রণ জানাবেন তিনি। উল্লেখ্য, সম্প্রতি দিল্লিতে তৃণমূল নেত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন জাভেদ আখতার, আখতার, সুধীন্দ্র কুলকার্নি। তাঁদের আমন্ত্রণে এবার মুম্বইয়ে কয়েকজন বিশিষ্ট মানুষের সঙ্গেও দেখা করবেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। এদিন মুখ্যমন্ত্রীর পরবর্তী গন্তব্য ছিল তুকারাম ওম্বলে মেমোরিয়াল। সেখানে ২৬/১১-র মুম্বই হামলার নিহতদের উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০২৪-এ দিল্লির ক্ষমতা থেকে মোদীকে সরানোর হুঁশিয়ারি আগেই দিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। সেজন্য শক্তিশালী বিরোধী জোট তৈরির করতে চাইছেন তিনি। তাই বিরোধীদের এককাট্টা করতে অনুঘটকের ভূমিকায় এবার ময়দানে মমতা।