হামলার জের! ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দার জন্য

হামলার জের! ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দার জন্য
হামলার জের! ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দার জন্য / ছবি সৌজন্যে- Facebook Post By @CircleofCricket.AshokeDinda

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আগামী ১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোট রাজ্যের ৩০ আসনে। এদিকে দ্বিতীয় দফার নির্বাচনী প্রচারের শেষদিনে ময়নায় অশোক দিন্দার উপর হামলার ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার জেরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায়।

মঙ্গলবার নির্বাচনী প্রচার গিয়ে আক্রান্ত হন বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা। তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়লে, আঘাত পান তিনি। তাই এই ঘটনার পর এবার কোনও ঝুঁকি নিতে রাজি নয় বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁর নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর তাই সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আজ থেকেই ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পাবেন অশোক দিন্দা। থাকবে হোম প্রোটেকশন ও ক্লোজ প্রোটেকশন টিম। এর পাশাপাশি ২০ জন সিআরপিএফ জওয়ান ঘিরে থাকবেন তাঁকে। এমনটাই জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, ১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোটে পূর্ব মেদিনীপুরের ময়নায় ভোট রয়েছে। তাই তার আগে শেষলগ্নের নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়েছিলেন ময়নার বিজেপি প্রার্থী অশোক দিন্দা। সেখানে তাঁর হয়ে প্রচার করেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষও। কিন্তু রোড শো শেষ হতেই, পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।  এদিকে একই সময় প্রচারে নেমেছিলেন ময়নার তৃণমূল প্রার্থী সংগ্রাম কুমার দোলুই। তাঁর হয়ে প্রচারে হাজির ছিলেন অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরত জাহান।

অভিযোগ ওঠে, সেই সময়ই তৃণমূলের সমর্থকদের দিক থেকে প্রাক্তন ক্রিকেটার অশোক দিন্দার গাড়ি লক্ষ্য করে ইট ছোঁড়া হয়। সেই ইটই গিয়ে লাগে অশোক দিন্দার পিঠে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁর যন্ত্রণা শুরু হয়ে যায়।

এক সংবাদমাধ্যমে তিনি এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে, এই ঘটনায় রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়েন প্রাক্তন এই ক্রিকেটার। নিজেকে বাঁচাতে সিটের নিচে বসে পড়েন তিনি। তাঁর গাড়ির কাচ সম্পূর্ণ ভেঙে যায় এই হামলার ঘটনায়। এই ঘটনার পর, অশোক দিন্দার নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। সেই জন্যই তাঁকে ওয়াই প্লাস ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দেওয়া হল বলে জানা গিয়েছে।

বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, দিন্দা তাঁর বাড়িতে থাকাকালীন আলাদা নিরাপত্তা পাবেন। এছাড়া তিনি যখনই যেখানে যাবেন, অন্তত ২০ জন নিরাপত্তারক্ষী তাঁর সঙ্গে থাকবেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিজেপিতে যোগদানের পরেই নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছিল একদা মমতা ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর। দিন কয়েক আগে নিরাপত্তা বাড়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায়েরও। সুনীল মণ্ডলকেও ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে এই একই মানের নিরাপত্তা পেয়েছেন একুশের বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ দেওয়া মিঠুন চক্রবর্তীও। এদিকে বারবার বিজেপি নেতাদের উপর হামলার অভিযোগ উঠছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। সেই জন্যই হেভিওয়েট নেতাদের নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.