শনিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২২

‘বেটি পড়াও’ উদ্যোগে শামিল ভাস্বর! কাশ্মিরী-কন্যার পড়ার দায়িত্ব নিলেন অভিনেতা

১২:৫৪ পিএম, ডিসেম্বর ৭, ২০২১

‘বেটি পড়াও’ উদ্যোগে শামিল ভাস্বর! কাশ্মিরী-কন্যার পড়ার দায়িত্ব নিলেন অভিনেতা

সামাজিক কিছু নিয়মের ঘেরাটোপে সেই প্রাচীনকাল থেকেই সমাজে নারীদের শিক্ষার ক্ষেত্রে প্রচুর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। পূর্ব থেকেই মনে করাই হতো শিক্ষার অধিকার নারীদের জন্য নয়। সেকারণে অল্প বয়েস থেকেই মেয়েদের হাতে উঠতো বই কলম এর পরিবর্তে হাতা খুন্তি। ইচ্ছের বিরুদ্ধে জোর করে বিয়ে দেওয়ার ঘটনা তো আজকের সমাজে দাঁড়িয়েও পরিলক্ষিত হয়ে থাকে। তবে সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে যুগ বদলেছে অনেকাংশে। এখন মেয়েরা তুলনায় অনেক সচেতন। শিক্ষার আলো পৌঁছেছে অন্ধকার গ্রাম গুলিতেও।

পরিবর্তনের ক্ষেত্রে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারা চালু হওয়া কিছু প্রকল্প যেমন কন্যাশ্রী, বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও ইত্যাদির অবদান অপরিসীম। এবার সেই প্রকল্পের সার্থক বাস্তব প্রয়োগ করতে দেখা গেলো টলি অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়কে। এক দুঃস্থ কাশ্মীরি কন্যার দায়ভার নিতে দেখা গেলো অভিনেতাকে।

[caption id="attachment_42644" align="aligncenter" width="1000"]ভাস্বর চট্টোপাধ্যায় ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়[/caption]

অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়ের মায়ের নামে খোলা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নাম অপর্ণা ফাউন্ডেশন। এই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগেই নানা সমাজসেবামূলক কাজ করে থাকেন অভিনেতা। এবার কাশ্মীরি কন্যার পড়াশোনার দায়িত্ব নিয়ে এক দৃষ্টান্ত তৈরি করলেন তিনি। তবে মানুষের মনে প্রশ্ন ওঠারই কথা পশ্চিমবঙ্গ থাকতে হঠাৎ সুদূর কাশ্মীরে গিয়ে কেন দায়িত্ব দিলেন তারও উত্তর দিয়েছেন অভিনেতা নিজেই।

তাঁর কথা অনুযায়ী তিনি বাঁকুড়া জেলার বাসিন্দা হলেও অনেক খুঁজেও ওরকম কাউকে পাননি। তার যুক্তি হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নানা মেয়েদের জন্য করা প্রকল্পের কথা তিনি বলেছেন। কিন্তু কাশ্মীরে গিয়ে তিনি নারীর শিক্ষার অভাবের দিকটা আরও স্পষ্টভাবে উপলব্ধি করেছিলেন। সেখানে বহুক্ষেত্রে তিনি বুঝতে পেরেছিলেন মেয়েরা পর্দার অন্তরালে সীমাবদ্ধ। অল্প বয়সে পরিবারের চাপে বন্ধ হয়ে যায় তাদের পড়াশোনা আর তারপর সংসারের দায়িত্ব তাদের কাঁধে ওইটুকু বয়স থেকে জোর করে চাপিয়ে দেওয়া হয়।

https://www.facebook.com/bhaswar.chatterjee.9/posts/10224331401169939

এই কারণেই অভিনেতার এমন উদ্যোগ। কাশ্মীরে তাঁর কিছু বন্ধু মারফত তিনি এই চতুর্থ শ্রেণীর মেয়েটির কথা জানতে পেরেছিলেন। পারিবারিক দুরাবস্থার কারণে তার পড়াশোনা বন্ধ হতে বসেছিল। তাই তিনি অপর্ণা ফাউন্ডেশনের তরফ থেকে মেয়েটির পড়াশোনার দায়িত্ব তুলে নিলেন। একজন দুঃস্থ কন্যার দায়ভার নিয়ে সমাজের অন্ধকার দূর করতে এগিয়ে এসেছেন অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়।অভিনেতার মহান ভাবনাকে কুর্নিশ জানাতেই হয়।