বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের! বাতিল হল CBSE’র দশম শ্রেণির পরীক্ষা, আপাতত স্থগিত দ্বাদশ শ্রেণিরও!

বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের! বাতিল হল CBSE’র দশম শ্রেণির পরীক্ষা, আপাতত স্থগিত দ্বাদশ শ্রেণিরও!
বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের! বাতিল হল CBSE’র দশম শ্রেণির পরীক্ষা, আপাতত স্থগিত দ্বাদশ শ্রেণিরও!

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশব্যাপী তাণ্ডব করছে মারণ করোনা ভাইরাস। দেশজুড়ে বাড়ছে সংক্রমণ, তার সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। দেশের মধ্যে ১১ টি রাজ্যে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে বুধবার CBSE-র দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র সরকার। জানিয়ে দেওয়া হল, ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে বাতিল করা হল CBSE-র দশম শ্রেণির পরীক্ষা। পাশাপাশি আপাতত স্থগিত করা হয়েছে দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষাও।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং শিক্ষামন্ত্রীর উপস্থিতিতে উচ্চস্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠক শেষে জানানো হয় যে, বোর্ডের তৈরি অবজেক্টিভ ক্রাইটেরিয়ার উপর ভিত্তি করে দশম শ্রেণির ফলাফল ঘোষিত হবে। আর দেশের করোনা পরিস্থিতি কেমন থাকে, তা দেখেই দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা কবে হবে, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আগামী ৪ মে থেকে এই দুই শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে সৃষ্টি হওয়া করোনা পরিস্থিতিতে শঙ্কিত লক্ষাধিক পড়ুয়া সিবিএসই বোর্ডের কাছে পরীক্ষা বাতিল করার আবেদন জানিয়েছিল। তাতে সম্মতি জানিয়েছিলেন তাঁদের অভিভাবক এবং শিক্ষকরাও। যদিও সেই আবেদনপত্র চলতি মাসের গড়ার দিকে বাতিল করে দেওয়া হয়েছিল। জানানো হয়েছিল, করোনাবিধি মেনেই পরীক্ষা নেওয়া হবে।

এদিকে,  দিল্লির সামগ্রিক করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে CBSE বোর্ডের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রের কাছে, পরীক্ষা বাতিলের আবেদন জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

অন্যদিকে, রাজ্য বোর্ড পরীক্ষা বাতিল করেছে মহারাষ্ট্রও। দেশের একাধিক পরীক্ষার্থী পরীক্ষা বাতিলের জন্য অনলাইন পিটিশনে সম্মতি জানিয়েছে। পরীক্ষা পিছনোর দাবিতে সরব হয়েছিলেন কংগ্রেসের রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। গত রবিবারই কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিওয়ালকে চিঠি লিখে পরীক্ষা বাতিলের আবেদন করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তিনি লেখেন যে, ‘প্রতিদিন এক লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। এই অবস্থায় প্রত্যেক পরীক্ষার্থীকে নিরাপত্তা দেওয়া বাস্তবসম্মত নয়। রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আমাদের কর্তব্য দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রুক্ষা করা। দয়া করে সেটাই করুন।পরিস্থিতি চিন্তা করে পরীক্ষা বাতিল করুন।’

এবার অবশেষে দেশের ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণের কথা বিবেচনা করে এবং পড়ুয়াদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে, বিরোধীপক্ষের পরামর্শকে সামনে রেখে পরীক্ষা বাতিল ও স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। কেন্দ্র সরকারের এই সিদ্ধান্তে খুশি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও। তিনি টুইট করে সে কথা জানিয়েওছেন। টুইটে তিনি এও জানিয়েছেন যে, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা নিয়েও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত সরকারের। তিনি বলেছেন, জুন অবধি শিক্ষার্থীদের অযৌক্তিক চাপে রাখার কোনও মানে হয় না। এটা সঠিক নয়, এ ব্যাপারে সরকারকে এখনই তিনি সিদ্ধান্ত নিতে অনুরোধ করেছেন।

উল্লেখ্য,  আগামী ৪ মে থেকে থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল CBSE-র ১০ ও ১২ ক্লাসের বোর্ডের পরীক্ষা। দশম শ্রেণীর পরীক্ষা ৭ জুন পর্যন্ত। দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা ১১ জুন পর্যন্ত। দুটি শিফটে ভাগ করা হয়েছিল দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা। প্রথমটি সকাল ১০টা ৩০ মিনিট থেকে দুপুর ১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। দ্বিতীয় শিফট দুপুর ২টো ৩০ মিনিট থেকে বিকেল ৫টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। তবে, তারিখ বদলালেও পরীক্ষার এই নিয়ম জারি থাকবে কিনা তা নিয়ে ১ জুন পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.