ঘোষণা হল বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বাকি আসনের প্রার্থী তালিকা

ঘোষণা হল বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বাকি আসনের প্রার্থী তালিকা
ঘোষণা হল বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বাকি আসনের প্রার্থী তালিকা / ফাইল ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন শুরু হতে মাত্র বাকি মাত্র আর কয়েকটা দিন। এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ৮ দফায়। তৃণমূল অনেক আগেই একবারে ২৯৪ টি আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে। অন্যদিকে বিজেপি এই রাস্তায় যায়নি। দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা, একের পর এক বৈঠক শেষে, ঘোষণা করছে তাঁদের প্রার্থী তালিকা। বিজেপি নির্বাচনের জন্য দফায় দফায় প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করছে। প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা নিয়ে বিজেপি ধীরে চলো নীতি গ্রহণ করেছে।

প্রথমে দুই দফার এবং সম্প্রতি তৃতীয় এবং চতুর্থ দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে। তৃতীয় ও চতুর্থ দফার মোট ৬৩ টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের তৃতীয় পর্বের জন্য ২৭ ও চতুর্থ পর্বের জন্য ৩৬ জন প্রার্থীর নামের তালিকা অনুমোদন করা হয়েছে। চার দফায় ১২২ টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে বিজেপি আগেই। এরপর মঙ্গলবার আরও ৪ টি কেন্দ্রের প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। আর আজ বাংলার নির্বাচনে বাকি আসনের প্রার্থী ঘোষণা করা হল বিজেপির পক্ষ থেকে।

উল্লেখ্য, প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার আগে বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত দিল্লিতে বৈঠক করেছে বিজেপির নির্বাচনী কমিটি। দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দফায়-দফায় আলোচনা হয়েছে দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা, মুকুল রায়, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের। এরপর আজই বাকি আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

এবার দেখে নেওয়া যাক, এবারের নির্বাচনে বিজেপি শিবিরে বাকি থেকে যাওয়া আসনে কারা প্রার্থী হয়েছেন- দমদম- বিমলশঙ্কর নন্দ, বরানগর- পার্নো মিত্র, সাগরদিঘি- মাফুজা খাতুন, ভবানীপুর -রুদ্রনীল ঘোষ, বালিগঞ্জ- লোকনাথ চট্টোপাধ্যায়, পাণ্ডবেশ্বর- জিতেন্দ্র তিওয়ারি, আসানসোল দক্ষিণ- অগ্নিমিত্রা পল, পানিহাটি- সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়, ইংরেজবাজার- শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী, বৈষ্ণবনগর- স্বাধীনকুমার সরকার, কৃষ্ণনগর উত্তর- মুকুল রায়, গোপালপুর-রাজারহাট- শমীক ভট্টাচার্য, হাবড়া- রাহুল সিনহা, বিধাননগর- সব্যসাচী দত্ত, ভাটপাড়া- পবন সিং, বীজপুর- শুভ্রাংশু রায়, নোয়াপাড়া- সুনীল সিং, খড়দহ- শীলভদ্র দত্ত, বোলপুর- অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়, শান্তিপুর- জগন্নাথ সরকার, কৃষ্ণগঞ্জ- আশিসকুমার বিশ্বাস, রায়গঞ্জ- কৃষ্ণ কল্যাণী, নৈহাটি- ফাল্গুনি পাত্র, মিনাখাঁ- জয়ন্ত মণ্ডল, কালনা- বিশ্বজিৎ কুণ্ডু, ধূপগুড়ি- বিষ্ণুপদ রায়, ডাবগ্রাম ফুলবাড়ি- শিখা চট্টোপাধ্যায়, মাটিগাড়া নকশালবাড়ি- আনন্দময় বর্মন, শিলিগুড়ি- শঙ্কর ঘোষ, শান্তিপুর- জগন্নাথ সরকার, হরিণঘাটা- অসীম সরকার, এন্টালি- প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল, চৌরঙ্গীতে- প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রর স্ত্রী শিখা মিত্র চৌধুরী, নোয়াপাড়া- সুনীল সিংহ, জগদ্দল- অরিন্দম ভট্টাচার্য, বর্ধমান দক্ষিণ- সন্দীপ নন্দী, অশোকনগর- তনুজা চক্রবর্তী, কামারহাটি- অনিন্দ্য (রাজু) বন্দ্যোপাধ্যায়, খড়দায়- শীলভদ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর দক্ষিণ- মহাদেব সরকার, রানাঘাট দক্ষিণে- মুকুটমণি অধিকারী, চাকুলিয়ায়- সচিন প্রসাদ, হেমতাবাদে- চাঁদিমা রায়, মন্তেশ্বর- সৈকত পাঁজা, কালিয়াগঞ্জে- সৌমেন রায়, তেহট্টে- আশুতোষ পাল, নাকাশিপাড়া- শান্তনু দেব, আসানসোলে- অগ্নিমিত্রা পাল, আসানসোল উত্তরে- কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, ডোমকলে- রুবিয়া খাতুন, ইংরেজবাজার- শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী, জোড়াসাঁকোয়- মীনাদেবী পুরোহিত, কল্যাণী- অম্বিকা, বসিরহাট উত্তরে- নারায়ণ মণ্ডল, কালনা- বিশ্বজিৎ কুণ্ডু, মানিকতলায়- কল্যাণ চৌবে, দুর্গাপুর পূর্বে- দীপ্তাংশু চৌধুরী, ধূপগুড়ি- বিষ্ণুপদ রায়, ময়নাগুড়ি- কৌশিক রায়, জলপাইগুড়ি- সুজিত সিংহ, মালে- মহেশ বাগী, নাগরাকাটে- পুনা ভেঙ্গরা, মধ্যমগ্রামে- রাজশ্রী রাজবংশী, বারাসাত- শঙ্কর চট্টোপাধ্যায়, দেগঙ্গায়- দীপিকা চট্টোপাধ্যায়, সন্দেশখালি- ভাস্কর সরকার, বসিরহাট দক্ষিণে- তারকনাথ ঘোষ, হিঙ্গলগঞ্জে- নিমাই দাস, গলসিতে- তপন বাগদি, হবিবপুর- জোয়েল মুর্মু, গাজোল- চিন্ময় দেব বর্মণ, চাঁচল- দীপঙ্কর রাম, হরিশচন্দ্রপুর- মতিউর রহমান, মালতিপুর- মৌসুমী দাস, লালগোলা- কল্পনা ঘোষ, ভগবানগোলা- মেহবুব আলম, নবগ্রাম- মোহন হালদার, কলকাতা বন্দর- অওধ কিশোর গুপ্ত, বালিগঞ্জ- লোকনাথ চট্টোপাধ্যায়, মুর্শিদাবাদ- গৌরীশঙ্কর ঘোষ, দুর্গাপুর পশ্চিম- লক্ষ্ণণ ঘড়াই, রানিগঞ্জ- বিজন মুখোপাধ্যায়, কুলটি- আজয় পোদ্দার, জামুড়িয়া- তাপস রায়, কান্দি- গৌতম রায়, বেলডাঙা- সুমিত ঘোষ, সুজাপুর- এসকে জিয়াউদ্দিন, জলঙ্গি- চন্দন মণ্ডল, নওদা- অনুপম মণ্ডল, হরিহরপাড়া- তন্ময় বিশ্বাস, দুবরাজপুর- অনুপ সাহা, সিউড়ি- জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়, বোলপুরে- অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়, নানুর- তারক সাহা, লাভপুর- বিশ্বজিৎ মণ্ডল, সাঁইথিয়া- প্রিয়া সাহা, ময়ূরেশ্বরে- শ্যামাপদ মণ্ডল। প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পাশাপাশি আজ বিজেপিতে যোগ দিলেন রামায়ণ’ খ্যাত অভিনেতা অরুণ গোভিল

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, তৃণমূলের মতো বিজেপির তৃতীয় এবং চতুর্থ দফার প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর রাজ্যের বেশ কিছু বিধানসভা কেন্দ্রে তুমুল বিক্ষোভ শুরু করেন বিজেপি নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের একটি বড় অংশ। এই প্রার্থী তালিকাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি বিভিন্ন জেলা থেকে কলকাতায় হেস্টিংসে দলের কার্যালয়ের সামনে গিয়েও বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মীরা। একাধিক কেন্দ্রে প্রার্থী অপছন্দ বিজেপি কর্মীদের। যা নিয়ে তুমুল বিক্ষোভ চলে কার্যালয়ের সামনে। ভোটের মুখে দলেরই একাংশের কর্মীদের এই বিক্ষোভে দৃশ্যতই অস্বস্তিতে পড়ে যায় বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব।

এই বিক্ষোভের আঁচ পৌঁছায় কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্ব পর্যন্ত। তাই এই বিক্ষোভ থামাতে চলে রাজ্য নেতৃত্বদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকও। তড়িঘড়ি দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হয় দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, রাহুল সিনহাদের। বুধবার দিল্লিতে গভীর রাত পর্যন্ত বিজেপির নির্বাচনী কমিটির বৈঠক চলে। সেই বৈঠক শেষ করে বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতায় ফেরেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, রাহুল সিনহা ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়রা। এরপরই আজ বিকেলে ঘোষণা করা হয়, বাকি আসনে প্রার্থীদের নাম।

এবারের বিধানসভা নির্বাচন মূলত সম্মানের লড়াই। বাংলার ক্ষমতা দখলে মরিয়া বিজেপি। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে পরাস্ত করে, ২০০-র বেশি আসনে জিতে ক্ষমতায় আসার ব্যাপারে আশাবাদী।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.