আধাসেনা নিয়ে মন্তব্যের জের, মমতার বিরুদ্ধে কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি

আধাসেনা নিয়ে মন্তব্যের জের, মমতার বিরুদ্ধে কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি
আধাসেনা নিয়ে মন্তব্যের জের, মমতার বিরুদ্ধে কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি

 

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ একুশে বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে চতুর্থ দফার ভোট রয়েছে রাজ্যের ৪ জেলার মোট ৪৪ টি কেন্দ্রে। আগামী ১০ এপ্রিল রয়েছে চতুর্থ দফার ভোট।

আজই নির্বাচনী প্রচারের উদ্দেশে উত্তরবঙ্গে গিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার উত্তরবঙ্গে জোড়া সভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একটি কোচবিহার উত্তর বিধানসভা এলাকায় এবং অপরটি শীতলকুচিতে।

এই কোচবিহার উত্তর বিধানসভা এলাকায় নির্বাচনী জনসভাতেই তৃণমূল নেত্রী অভিযোগ করেন যে, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা অশান্তি করছেন। বহু গ্রামে ঢুকে মহিলাদের ভোট দিতে বাধা দিচ্ছেন। এই অবস্থার কীভাবে সামাল দেওয়া উচিত, সেই পথও দেখিয়েছেন তিনি। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার কথা বলেছেন। আর মমতার এই নিদানের পরিপ্রেক্ষিতেই বিজেপি নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে। নির্বাচন কমিশনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

আজ সাংবাদিক বৈঠক করে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন যে, ‘কোনও রাজনৈতিক দল কোনও সামরিক বাহিনী বা আধা সামরিক বাহিনী নিয়ে বিরোধিতা করে, মন্তব্য করে, তাহলে তা সংবিধান বিরোধী। রাষ্ট্রবিরোধী কাজ বলে মনে করি। এই মন্তব্যের কী রাজনৈতিক স্বীকৃতি রয়েছে, সেই প্রশ্নই কমিশনের কাছে রাখছি।’ তিনি আরও বলেন যে, ‘এই ধরনের মন্তব্য মাওবাদীরা করতে পারে। সামরিক বাহিনী, আধা সামরিকবাহিনী দেশের রক্ষা করে। তাদের আক্রমণ করছেন মমতা! কোন অধিকারে?’

এদিন কোচবিহারের সভামঞ্চ থেকে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা অশান্তি করতে এলে একদল ওদের ঘিরে ফেলুন। আরেক দল ভোট দিতে যান। কারা এই কাজ করছে, তাদের নাম লিখে রাখুন।’

এখানেই শেষ নয়। ১৪৪ ধারা নিয়েও বিস্ফোরক মন্তব্য করেন মমতা। তিনি বলেন, ‘গোটা এলাকায় ১৪৪ ধারা কখনই জারি হয় না। ওটা ২০০ মিটারের মধ্যে হয়। ওটা বিজেপি মিথ্যা কথা বলে। যাতে মানুষ জোট বেধে বেরোতে না পারে। ২০০ মিটার পর্যন্ত ১৪৪ ধারা কার্যকরী হয়। তার বেশি হয় না।’ আর এবার নির্বাচনী আবহে, মমতার এই মন্তব্যকে অস্ত্র বানিয়ে ফের লড়াইয়ের ময়দানে নেমে পড়েছে রাজ্য বিজেপি।