তিন মিনিটেই শেষ শুনানি! মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে আদালতে যাচ্ছে বিজেপি

তিন মিনিটেই শেষ শুনানি! মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে আদালতে যাচ্ছে বিজেপি
তিন মিনিটেই শেষ শুনানি! মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবিতে আদালতে যাচ্ছে বিজেপি

মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ এর জন্য খসরা তৈরি করেছে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল। আজ এই ঘটনার শুনানি ছিল বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এর ঘরে। কিন্তু শুনানি শুরুর সাড়ে তিন মিনিটের মধ্যেই কথা শেষ হয়ে যায়। পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয় ৩০ জুলাই। কিন্তু তার আগেই বিজেপি জানায় এবার তাঁরা এই বিষয়টি নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হতে চলেছে।

এদিন দুপুর ১.৫৫ মিনিটে স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরে যান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ও পুরুলিয়ার বিধায়ক সুদীপ মুখোপাধ্যায়, কালনার বিধায়ক অম্বিকা রায়। মুকুল রায়ের দলত্যাগ নিয়ে ৬৪ পাতার অভিযোগপত্র অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জমা দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারীরা তবুও এদিনের শুনানিতে এ সংক্রান্ত আরও তথ্য জানতে চেয়েছেন স্পিকার। সেই মতই ৩০ জুলাই পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে।

কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী স্পিকারের ঘর থেকে বেরিয়ে জানান, দেশের সর্বত্র দলত্যাগ বিরোধী আইন চালু হলেও পশ্চিমবঙ্গে সেই আইন লাগু করা হয়নি। বাঁকুড়ার বাম বিধায়ক দিপালী মিত্রের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, তাঁর দলবদল ও বিধায়ক পদ খারিজের মামলার ২৩বার শুনানি হয়েছে। কিন্তু ফালাফল হয়নি। তাই পূর্ব অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে এই প্রক্রিয়ায় ভরসা না রেখে বিজেপি আদালতের দ্বারস্থ হবে বলে জানান তিনি।

বিজেপির টিকিটে কৃষ্ণনগর উত্তর থেকে বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন মুকুল রায়। তবে ভোটের ফল ঘোষণার কিছু দিনের মধ্যেই তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন ঘটে মুকুল রায়ের। এরপরেই তাঁকে পিএসি চেয়ার ম্যান পদে বসানো নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়।এই নিয়ে রাজ্যপালের কাছে নালিশ জানিয়েছেন তারা। এমনকি গ্রাম সভার স্পিকার নিরপেক্ষভাবে পিএসসির চেয়ারম্যান কে নির্বাচন করেননি বলেও অভিযোগ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। এরপরে তাই মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজ করার দাবি তুলে খসড়া প্রস্তুত করেছে বিজেপি। কিন্তু বিধান সভার স্পিকারের বিচার প্রক্রিয়ায় ভরসা না থাকায় সময় নষ্ট না করে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আদালতের দ্বারস্থ হবে বলেই জানাচ্ছে বিজেপির পরিষদীয় দল।