ভুয়ো কোনও ভোটার যেন বুথে না ঢুকতে পারে, কমিশনে আর্জি বিজেপির

ভুয়ো কোনও ভোটার যেন বুথে না ঢুকতে পারে, কমিশনে আর্জি বিজেপির
ভুয়ো কোনও ভোটার যেন বুথে না ঢুকতে পারে, কমিশনে আর্জি বিজেপির

ভবানীপুরের উপ নির্বাচনে যেকোনো প্রকারে জিততে মরিয়া বিজেপি। এদিকে ওই কেন্দ্রের প্রার্থী খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হওয়ায় লড়াইটা আরও কঠিন। তাই সেখানে যাতে সব রকম নিয়ম কড়াকড়ি ভাবে পালন করা হয় সেই নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিল বিজেপি। মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক আরিজ আফতাবকে দেওয়া ওই চিঠিতে একাধিক দাবি করা হয়েছে।

বিজেপির তরফে দেওয়া ওই চিঠিতে জানানো হয়েছে, বুথে পাঁচজনের বেশি যাতে না ঢুকতে পারে। একই সঙ্গে বিজেপির দাবি, কেউ বুথের ভিতরে ঢোকার আগে ভাল করে যেন পরীক্ষা করে নেওয়া হয়। ভুয়ো কোনও ভোটার যেন ভিতরে না ঢুকতে পারে। এছাড়াও কমিশনের কাছে বিজেপি নেতাদের আর্জি, সচিত্র পরিচয়পত্র ছাড়া ভোটকেন্দ্রে না ঢোকার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে সুনিশ্চিত করতে হবে।

এদিকে ভোটের দিন বা তার আগে পরে যাতে কোনও রকম অশান্তি না হয় তার জন্য তৎপর নবান্ন। ইতিমধ্যেই এই মর্মে সংশ্লিষ্ট জেলার জেলাশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ভোটের আগে কোনওরকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে প্রয়োজনে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও।

সম্প্রতি মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদি সংশ্লিষ্ট জেলার জেলাশাসকদের নিয়ে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। সেখানে জেলা প্রশাসনের কর্তাদের মুখ্যসচিব জানিয়েছেন, কোনও রাজনৈতিক অশান্তির অভিযোগের সঙ্গে সঙ্গে পদক্ষেপ করতে হবে। জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের এই কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর, বৈঠকে মুখ্যসচিব কড়া নির্দেশ দিয়ে জানিয়েছেন, কোনও ভাবেই যেন অস্ত্র, বোমা ব্যবহার করতে না পারে দুষ্কৃতীরা সেদিকে নজর দিতে হবে প্রশাসনকে। প্রয়োজনে নজরদারি বাড়াতে হবে। তল্লাশি অভিযান চালাতে হবে। কোথাও হিংসা বা অশান্তির খবর এলে দ্রুত তার নিষ্পত্তি করতে হবে।

উল্লেখ্য, ভবানীপুর ও মুর্শিদাবাদে বাড়তি নজর দিতে বলা হয়েছে। এদিকে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বাহিনী এসেছে শহরে। তাই কোনও রকম হিংসা খবর পেলে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়েই সেই ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ওই বৈঠকে।