এবার নির্বাচনের আগে নয়া পদক্ষেপ, দিল্লির বস্তিতেই রাত কাটানোর সিদ্ধান্ত সাংসদদের

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ আর মাত্র দিন কয়েক পরেই দিল্লির নির্বাচন। এই নির্বাচনের প্রচারে কোনোরকম ঘাটতি না রাখতে চেয়ে এবার নয়া কর্মসূচী গ্রহন করেছে বিজেপি। এবারে আপের ভোটব্যাঙ্কে হাল বসাতে বিজেপির অন্যতম টার্গেট দিল্লির বস্তিগুলি। এবার অভিনব পদ্ধতিতে নির্বাচনের প্রচারে নেমে মঙ্গলবার থেকে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত রাজ্যসভা এবং লোকসভা মিলিয়ে মোট ৩৭৫ জন সাংসদ রাজধানীর বস্তিতে দিন কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই কর্মসূচীর জন্য নির্দেশিকা দিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

জেনা গিয়েছে, নির্বাচনের আগে জনসংযোগের লক্ষ্যে বস্তিতে দিন-রাত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজেপি সাংসদেরা। বস্তিতে তাঁবু খাটিয়ে সেখানে রাত কাটাবেন তাঁরা এমনকি সারাদিন বস্তিবাসীদের সাথে দিন কাটিয়ে তাঁদের অভাব অভিযোগও শুনবেন তাঁরা। এমনকি রাতের খাবারও খাবেন বস্তিবাসীদের সাথে।

মূলত কেজরিওয়ালের দলকে টেক্কা দিতেই এমন বড়সড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদি সরকার। দিল্লি নির্বাচনের এই সমস্ত বস্তি এলাকা থেকে একটা বড় অংশের ভোট আসে। যাতে সেই ভোট আপ দলে চলে না যায়, সেকারনেই বস্তিতে রাত কাটিয়ে তাঁদের অভাব অভিযোগ শুনছেন বিজেপি দলের এই বিপুল পরিমাণ সাংসদ।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর বলেন, বস্তিবাসীদের জন্য গত ৫ বছরে কিছুই করেনি কেজরি সরকার। তবে এবার সবকিছু পালটানো হবে। এমনকি বিজেপি সরকারের তরফে বস্তিবাসীদের বাড়ি দেওয়ার জন্যও স্কিম চালু করার কথা বলা হয়েছে। মূলত নির্বাচনে জিততেই বস্তিকে হাতিয়ার করেছে মোদি সরকার।

আরও পড়ুনঃ  “মুখ্যমন্ত্রী দ্বিচারিতা করছেন”, ধর্মঘটের বিরোধিতা করায় মমতা বন্দোপাধ্যায়কে আক্রমন বামেদের

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.