রাজনীতি ছেড়ে যাওয়া বাবুলকেই ভরসা করছে বিজেপি

রাজনীতি ছেড়ে যাওয়া বাবুলকেই ভরসা করছে বিজেপি
রাজনীতি ছেড়ে যাওয়া বাবুলকেই ভরসা করছে বিজেপি

বিতর্ক উস্কে দিয়ে ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছিলেন রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছেন তিনি। বাবুল সুপ্রিয়র এই পোস্টে জল্পনা ছড়াতে সময় লাগেনি বেশি। প্রশ্ন উঠেছিল তাহলে কি ভোটে হেরে গিয়ে তৃণমূলে যোগদান করছেন তিনি? যদিও সেই জল্পনায় জল ঢেলে তিনি জানিয়েছিলেন কোনরকম রাজনৈতিক দলের যোগদান করবেন না তিনি, অরাজনৈতিক ভাবেই মানুষের সেবা করবেন। এবার সেই রাজনীতি ছেড়ে দেওয়া বাবুল সুপ্রিয়কেই ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের হয়ে প্রচারে নামাচ্ছে গেরুয়া শিবির। যা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে বঙ্গ বিজেপি। আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালকে তৃণমূল সুপ্রিমো বিরোধী মুখ হিসেবে দাঁড় করানো হয়েছে ভবানীপুর কেন্দ্রে উপনির্বাচনে। একইসঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুরের প্রার্থীদের নামও।

এদিন প্রার্থী ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই একঝাঁক তারকা প্রচারকদের নামও ঘোষণা করেছে বিজেপি। সেই তালিকায় রয়েছে একাধিক হেভিওয়েটদের। দিলীপ ঘোষ, শুভেন্দু অধিকারী, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়, দেবশ্রী চৌধুরী, অগ্নিমিত্রা পল, রুদ্রনীল ঘোষ, স্মৃতি ইরানি, শাহনাওয়াজ হোসেন, হরদীপ সিং পুরী-সহ আরও একাধিক ওজনদার ব্যক্তির নাম রয়েছে সেই তালিকায়।

সেখানেই দেখা গিয়েছে, নাম রয়েছে বাবুল সুপ্রিয়র। আর তাতেই চমক লেগেছে রাজনৈতিক মহলে। কারণ কিছুদিন আগেই রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। এরপর সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ কোনও রাজনৈতিক মন্তব্য করতে দেখা যায়নি তাঁকে। এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার বিজেপি ভবানীপুরের স্টার ক্যাম্পেনারের তালিকা প্রকাশ করতেই উঠছে নানা প্রশ্ন।

এই প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে অবশ্য বাবুল সুপ্রিয় বলছেন, তিনি প্রচারে থাকবেন না। যদিও টুইট করে প্রিয়াঙ্কাকে শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন তিনি। এদিকে বাবুল সুপ্রিয়কে যে প্রচারে দেখা যাবে সেই বিষয়টিও স্পষ্ট করেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

অন্যদিকে, রুদ্রনীল ঘোষকে ক্যাম্পেইন কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে মনে করা হচ্ছে, রুদ্রনীল ঘোষের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল এর প্রচারকে আরও জোরদার করতে পারে বঙ্গ বিজেপি।