মোদীর ব্রিগেডে যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র নিয়ে হাজির হবেন বিজেপি নেতারা

মোদীর ব্রিগেডে যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র নিয়ে হাজির হবেন বিজেপি নেতারা
মোদীর ব্রিগেডে যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র নিয়ে হাজির হবেন বিজেপি নেতারা

৭ মার্চ কলকাতায় আসছেন নরেন্দ্র মোদী। ওই দিন ব্রিগেডে তাঁর সমাবেশে ১০ লক্ষ জমায়েতের লক্ষ্য নিয়েছে বিজেপি। ‘পরিবর্তনের পরিবর্তন হবে’ এই বার্তা দেওয়াই লক্ষ্য। ব্রিগেডের সভার জন্য বাড়ি বাড়ি যাবেন নেতা-কর্মীরা।

বাড়ি বাড়ি আমন্ত্রণপত্র নিয়ে হাজির হবেন বিজেপি নেতারা। মোদীর ব্রিগেডে যাওয়ার আমন্ত্রণ। শুধু বাড়ি বাড়ি আমন্ত্রণই নয়, ফোনেও আসতে পারে আমন্ত্রণ বার্তা, বাংলার পরিবর্তনের লড়াইয়ে শামিল হতে ব্রিগেডে চলুন। ৭ মার্চ বিজেপির ব্রিগেড সমাবেশ। গোটা রাজ্যের নজর যাতে ওইদিন ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে থাকে, সেই পরিকল্পনা নিয়ে আজ থেকেই প্রস্তুতিতে ঝাঁপিয়ে পড়ল বঙ্গ বিজেপি।

মঙ্গলবার দলের হেস্টিংস অফিসে ব্রিগেডের সভার প্রস্তুতি নিয়ে কোর কমিটির দীর্ঘ বৈঠক হয়। ছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিব প্রকাশ, অমিত মালব্য, অরবিন্দ মেনন, মুকুল রায়, স্বপন দাশগুপ্ত, অমিতাভ চক্রবর্তী, অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়-সহ দলের শীর্ষনেতারা।

দলের মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, “ব্রিগেডের সভায় সমাজের সব শ্রেণির মানুষ উপস্থিত থাকবেন। রাজ্যের সব বুথ থেকে অন্তত ১০ জন করে লোক আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। আগামী ২ মার্চ থেকে রাজ্যজুড়ে ব্রিগেডের জনসভার প্রচার শুরু করবে গেরুয়া শিবির।”

দলীয় সূত্রে খবর, ২০২১-এর যুদ্ধ জিততে ব্রিগেডের সভায় ১০ লক্ষ জমায়েতের লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। আর সেজন্য রাজ্যের ৭৮ হাজার বুথের প্রতি বাড়িতে যাবেন বিজেপি নেতারা। মোদীর ছবি দেওয়া আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে যাবে রাজ্যের প্রতিটি ঘরে। এবার উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের দলের কর্মী-সমর্থকরা আসবেন ব্রিগেডে।

৭ মার্চ কলকাতায় মোদীর সভাকে সর্বাঙ্গসুন্দর করে তোলার ভাবনা বিজেপি-র। গোটা শহর জায়ান্ট স্ক্রিনে মুড়ে ফেলা হবে। গ্রামে গ্রামে জায়ান্ট স্ক্রিনে দেখানো হবে মোদির সভা। আবার ব্রিগেডের প্রস্তুতির প্রচারে গ্রামে গ্রামে বাইক মিছিল করবে যুব মোর্চা। গুরুদায়িত্ব মূলত রয়েছে দলের কলকাতা জোনের উপর। রাজ্যজুড়ে দলের যে পাঁচটি রথযাত্রা চলছে তার সমাপ্তিও হবে ব্রিগেডের ময়দানে। দু’ কোটি মানুষের কাছে রথ পৌঁছনোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.