নামাজ চলাকালীন ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল আফগানিস্তানের এক মসজিদ! নিহত অন্তত ১০০ জন

নামাজ চলাকালীন ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল আফগানিস্তানের এক মসজিদ! নিহত অন্তত ১০০ জন
নামাজ চলাকালীন ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল আফগানিস্তানের এক মসজিদ! নিহত অন্তত ১০০ জন / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ আফগানিস্তান কিছুতেই শান্ত হচ্ছে না। থামছে না রক্তপাত। ফের একবার ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল আফগানিস্তানের এক মসজিদ। আফগানিস্তানের উত্তরপূর্ব কুন্দজ প্রদেশের ওই মসজিদের বিস্ফোরণে অন্তত ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেই সঙ্গে আহত হয়েছেন বহু মানুষ। উল্লেখ্য, এর আগে চলতি মাসের প্রথম দিকে, ৩ অক্টোবরও কাবুলের এক মসজিদেই বিস্ফোরণ হয়। সেই ঘটনায় ৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল। তবে, এই বিস্ফোরণ আরও ভয়াবহ ছিল বলেই জানা যাচ্ছে।

তালিবানের এক মুখপাত্র জাবিনুল্লা মুজাহিদ ওই বিস্ফোরণের কথা জানিয়ে একটি টুইট করেছেন। সেই পোস্টে তিনি আজকের বিস্ফোরণের কথা জানিয়ে বলেছেন, ‘আজ বিকেলে একটি মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়েছে। যার ফলে বহু মানুষ শহিদ হয়েছেন। আহত হয়েছেন অনেকেই।’

অন্যদিকে, প্রত্যক্ষদর্শীদের কথায় জানা গিয়েছে, বিস্ফোরণের সময় শিট্টে মসজিদে শুক্রবার নমাজ পড়ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সেই সময় আচমকাই বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে মসজিদটি। মুহূর্তের মধ্যেই মসজিদ সংলগ্নস্থান মৃত্যু ভুমিতে পরিণত হয়। দ্রুততার সঙ্গে শুরু হয় উদ্ধারকাজ। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত কোনও জঙ্গি সংগঠনই এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। কিন্তু সম্প্রতি যে নাশকতাগুলি হয়েছে, সেগুলির দায় স্বীকার করতে দেখা গিয়েছে ইসলামিক স্টেট-খোরাসান গোষ্ঠীকে। নৃশংসতার জন্য কুখ্যাত এই জঙ্গিগোষ্ঠী তালিবানদের কট্টর বিরোধী।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগে চলতি মাসের কাবুলের মসজিদে বিস্ফোরণ ঘটেছিল। হামলার পাল্টা জবাব দিয়ে কাবুলে আইএস-এর একটি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়েছিল জেহাদিরা। আফগানিস্তানে চরমে পৌঁছেছে ইসলামিক স্টেট বনাম তালিবান লড়াই। কয়েকদিন আগে ইসলামিক স্টেটের খোরাসান শাখার প্রাক্তন প্রধান আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যা করে তালিবান। গত আগস্ট মাসে কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায় ইসলামিক স্টেট। এই বিস্ফোরণের পিছনেও খোরাসানের দায় রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।