মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ভবিষ্যত কি? শিক্ষামন্ত্রীর বৈঠকে সিদ্ধান্ত হতে পারে আজ

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ভবিষ্যত কি? শিক্ষামন্ত্রীর বৈঠকে সিদ্ধান্ত হতে পারে আজ
মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ভবিষ্যত কি? শিক্ষামন্ত্রীর বৈঠকে সিদ্ধান্ত হতে পারে আজ

করোনা পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ভবিষ্যত অনিশ্চিত। এই অবস্থায় উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ এবং মধ্যশিক্ষা পর্ষদ রাজ্যের কোর্টে বল ঠেলে দিয়ে জানিয়েছে এই বিষয়ে রাজ্যের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে ধার্য করা হবে। সেই মতোই এবার আজ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ভবিষ্যত নিয়ে বৈঠক হতে চলেছে বিকাশ ভবনে। করোনা মুক্ত হবার পর বৃহস্পতিবারই দফতরে গিয়ে দায়িত্ব নিতে চলেছেন শিক্ষামন্ত্রী হিসেবে ব্রাত্য বসু। দফতরে গিয়ে এই প্রথম বৈঠকেই মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক নিয়ে করবেন নয়া শিক্ষামন্ত্রী।

ইতিমধ্যেই চলতি বছরের মাধ্যমিক পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন পর্ষদ সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন যে রকম অতিমারি পরিস্থিতি চলছে তা চলতে থাকলে নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী মাধ্যমিক পরীক্ষা করানো সম্ভব হবে না। অন্যদিকে, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সভাপতি মহুয়া দাস জানান, মাধ্যমিক পিছোলে উচ্চ মাধ্যমিকও পিছোবে। তবে সরকারি সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

একইসঙ্গে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে পরীক্ষা পিছিয়ে যাবে নাকি তা সম্পূর্ণ বাতিল করা হবে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার ছেড়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের উপর। এরপরেই আজ এই সংক্রান্ত বিষয়ে বৈঠকে বসতে চলেছে স্কুল শিক্ষা দফতর। আজ বিকেল চারটে নাগাদ মধ্যশিক্ষা পর্ষদ এবং উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতিদের আসতে বলা হয়েছে বৈঠকে। এছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে স্কুলশিক্ষা কমিশনার এবং স্কুল শিক্ষা সচিবের। এখনও পর্যন্ত মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তার বিস্তারিত রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে বলেও সূত্রের খবর।

এদিকে পরীক্ষা বাতিল হলে কিভাবে পরীক্ষার্থীদের নম্বর দেওয়া হবে তা নিয়ে ইতিমধ্যেই চিঠি পাঠানো হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে। তার ভিত্তিতেই বিকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। যদিও দশম শ্রেণির ইন্টারনাল পরীক্ষা শুধু মাত্র ১০ নম্বরের হয়েছে বলে প্রস্তাবে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি নবম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফলের ওপর মাধ্যমিকের নম্বর দিলে তা যুক্তিযুক্ত হবে না বলেও স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর।

প্রসঙ্গত, এবছর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল আগামী ১৫ জুন থেকে। মাধ্যমিক পরীক্ষা হওয়ার কথা আগামী ১ জুন থেকে। অতএব হাতে সময় মাত্র আর ২০ দিন। সেক্ষেত্রে এত তড়িঘড়ি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। তবে এই ধন্ধের কারণে সমস্যায় পড়েছে পরীক্ষার্থীরা।